৬:২৬ অপরাহ্ণ - বুধবার, ২১ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / নিখোঁজ ১৯ পরিবারের সংবাদ সম্মেলন : আমাদের সবাইকে মেরে ফেলুন

নিখোঁজ ১৯ পরিবারের সংবাদ সম্মেলন : আমাদের সবাইকে মেরে ফেলুন

ঢাকা, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৫ (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর প্রেসক্লাবে পরিবারের সদস্যহারা নিখোঁজ ১৯ পরিবারের সদস্যরা এক সংবাদ সম্মেলনে  বলা হয়, বাবা হারানো শিশুর আকুতি, ‘আমি বাবার হাত ধরে স্কুলে যেতে চাই’। আর ভাই হারানো বোনের বক্তব্য, ‘ভাইয়ের জন্য কাঁদতে কাঁদতে আমাদের চোখের পানি শুকিয়ে গেছে। আমাদের পরিবারের সবাইকে মেরে ফেলুন।’ আর সন্তানহারা এক বাবা তার ছেলের কবর জিয়ারত করতে চান।

সূত্রাপুর থানা ছাত্রদল সভাপতি সেলিম রেজা পিন্টুর বোন মুন্নি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী তো আমাদের কান্না শুনবেন না। আমরা আমাদের ভাইকে ফেরত চাই না। প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব, আমাদের পরিবারের সবাইকে মেরে যান। আমরা আর কাঁদতে চাই না। কাঁদতে কাঁদতে আমাদের চোখের পানি শুকিয়ে গেছে।’

২০১৩ সালের ২ ডিসেম্বর গুম হওয়া পারভেজ হোসেনের শিশু কন্যা হৃদি বাবার হাত ধরে স্কুলে যেতে চায়। বাবা তাকে আইসক্রিম কিনে দিবে সেই অপেক্ষায় বসে থাকে। সে বলে, ‘আমি বাবার হাত ধরে স্কুলে যেতে চাই, বাবা আইসক্রিম কিনে আনবে। মা আইসক্রিম কিনে দেয় না। মার কাছে টাকা নেই। আমার বাবাকে যে এনে দিবে আমার কাছে অনেক চকলেট আছে, আমি তাকে চকলেট দেব। আমি বাবার সাথে শিশু পার্কে যেতে চাই। রাতে আমি বাবার জন্য কান্না করি, মাও কান্না করে, বাবা আসে না।’

গত ২০১৩ সালে ৬ ডিসেম্বর গুম হওয়া নিজাম উদ্দিন মুন্নার বাবা সামছুদ্দিন বলেন, ‘আমার একটাই পরিচয় গুম হওয়া সন্তানের পিতা। এই পরিচয় আর কারও হোক তা কামনা করি না। অনেক কেঁদেছি আর কাঁদতে চাই না। সরকারের কাছে একটা চাওয়া, আমাদের সন্তানকে মেরে যেখানে রাখা হয়েছে সেই মাটিটা আমাকে দেখিয়ে দিন। যেন মাটিটা ছুয়ে সান্ত্বনা পেতে পারি। জিয়ারত করতে পারি।’

গত ২০১৩ সালের ৪ ডিসেম্বর গুম হওয়া সাজেদুল ইসলাম সুমনের মা হাজের খাতুন বলেন, ‘দুই বছর পার করেছি আর পারছি না। সাংবাদিক ভাইয়েরা আপনারা ভাল করে লিখবেন যেন আমাদের সন্তানদের ফেরত পাই।’ এ কথা বলেই তিনি ডুকরে কেঁদে উঠেন। পরে আর তিনি কথা বলতে পারেননি।

গত ২০১৩ সালের ২৮ নভেম্বর গুম হওয়া খালিদ হাসান সোহেলের স্ত্রী শাম্মী সুলতানা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘জেল গেট থেকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহনীর পরিচয়ে আমরা স্বামীকে তুলে নিয়ে গেছে। এখন ফেরত পাইনি। আমার দুই বছরের সন্তান পিতা ছাড়া শৈশব পার করেছে। আমরা সন্তানের সেই শৈশব ফিরিয়ে দিন।’

একই বছরের ২ ডিসেম্বর গুম হওয়া সোহেলের ছেলে জেএসসি পরীক্ষার্থী রাজু বলেন, ‘বাবা আমার জন্মদিনের ফুল কিনতে গিয়ে আর ফিরে আসতে পারেননি। বাবা ছাড়া আমাদের ভবিষ্যৎ অচল। বাবাকে ফিরিয়ে দিন।’

ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর গুম হওয়া আদনান চৌধুরীর বাবা রুহুল আমীন বলেন, ‘রাত দুইটার দিকে পোশাকদারী র‌্যাব-১ পরিচয়ে আমার ছেলেকে তুলে নিয়ে যায়। তারা আমার ছেলেকে ফেরত দিয়ে যাবে বলেছিল। আজও ছেলেকে ফিরিয়ে দেয়নি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন, আপনি নির্দেশ দিলে প্রশাসন আমরা ছেলেকে ফিরিয়ে দেবে।’

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাজেদুল ইসলাম সুমনের বোন মারুফা ইসলাম।

২০১৩ সালের নভেম্বর ও ডিসেম্বরে রাজধানীতে গুম হন এই ১৯ জন। তারা সবাই বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তাদের পরিবার প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। গুম হওয়া ১৯ জন হলেন- সাজেদুল ইসলাম সুমন, জাহিদুল করিম তানভীর, আবদুল কাদের ভুঁইয়া মাসুম, মাজহারুল ইসলাম রাসেল, আসাদুজ্জামান রানা, আল আমিন, এম এ আদনান, কাউসার, সেলিম রেজা পিন্টু, খালিদ হাসান সোহেল, সম্রাট মোল্লা, জহিরুল ইসলাম, পারভেজ হোসেন, মো. সোহেল, মো. সোহেল চঞ্চল, নিজাম উদ্দিন মুন্না, তরিকুল ইসলাম ঝন্টু, মাহবুব হাসান সুজন ও কাজী ফরহাদ। সৌজন্যে প্রিয়.কম

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents