১১:১৮ পূর্বাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর , ২০১৯
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য রোলমডেল : শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন

বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য রোলমডেল : শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন

amu 1.12.15ঢাকা, ০১ ডিসেম্বর ২০১৫ (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ সরকার গৃহীত নীতি ও কর্মসূচি স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য রোলমডেল হতে পারে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে ইতোমধ্যে অনেক দূর এগিয়েছে। শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চলগুলোতে (ইপিজেড) কর্মরত শতকরা ৬৪ ভাগই নারী। তৈরি পোশাক শিল্প ও শ্রমঘন এসএমই শিল্পসহ সামগ্রিক শিল্পখাতে নারীর অংশগ্রহণ প্রতিনিয়ত বাড়ছে।

শিল্পমন্ত্রী গতকাল সোমবার অস্ট্রিয়ায় অনুষ্ঠিত ‘জাতিসংঘ শিল্প উন্নয়ন সংস্থার (ইউনিডো) চতুর্থ অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্পখাতের উন্নয়ন’ শীর্ষক ফোরামে বাংলাদেশের ইপিজেডগুলোর অভিজ্ঞতা বিনিময়কালে একথা বলেন।
ইউনিডোর ১৬তম সাধারণ অধিবেশন উপলক্ষে ভিয়েনা ইন্টারন্যাশনাল সেন্টারে এ ফোরামের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা সিএনএনের সাবেক উপস্থাপক টড বেঞ্জামিন। এতে অন্যান্যের মধ্যে ইউনিডোর মহাপরিচালক লি ইয়াং, নোবেলবিজয়ী অর্থনীতিবিদ জোসেফ স্টিগলিজ, ইথিওপিয়ার শিল্পমন্ত্রী আহমেদ আবতিওসহ স্বল্পোন্নত দেশগুলোর শিল্পমন্ত্রী, বাণিজ্য ও অর্থমন্ত্রী, জাতিসংঘভুক্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা, আফ্রিকা ও এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার আঞ্চলিক অর্থনৈতিক সংস্থা, দাতা সংস্থা, আঞ্চলিক উন্নয়ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, সুশীলসমাজসহ এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর বেসরকারিখাতের প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে ৮টি রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চলে (ইপিজেড) বিশ্বের ৩৭টি দেশের বিনিয়োগ রয়েছে। দেশের মোট রপ্তানি আয়ের শতকরা প্রায় ২০ ভাগ এসব ইপিজেড থেকে আসছে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ইপিজেডগুলো থেকে ৪৭ হাজার ৬২৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। তিনি জানান, একই সময় ইপিজেডগুলোতে সরাসরি ৪ লাখ ২৯ হাজার এবং পরোক্ষভাবে প্রায় ৪ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে।
আমির হোসেন আমু আরও বলেন, ইপিজেডগুলো কর্মরত শ্রমিকের অধিকার রক্ষা, পেশাগত নিরাপত্তা, সুস্বাস্থ্য, কল্যাণ, শিক্ষা ও নির্ভরশীলদের সুরক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। এ লক্ষ্যে সরকার ইপিজেড শ্রমিক কল্যাণ সমিতি ও শিল্প সম্পর্ক আইন-২০১০ প্রণয়ন করেছে। এর আওতায় ইপিজেড শ্রমিকের অধিকার ও কল্যাণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ফলে বাংলাদেশের ইপিজেডগুলো বিদেশী বিনিয়োগের আকর্ষণীয় ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, আর্থসামাজিক উন্নয়নে ইপিজেড ও শিল্পপার্কের সাফল্য বিবেচনা করে সরকার আরও ১০০টি বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চল (এসইজেড) গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে।
শিল্প মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ একথা বলা হয়।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

যথাযত মর্যাদায় বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বজলুর রহমানের ৪র্থ মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিবাদকারী, …

সকল ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে : রাষ্ট্রপতি

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ দেশের শান্তি ও অগ্রগতি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents