৩:২৩ পূর্বাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / রাজনীতি / আওয়ামী লীগ / ভাষাসৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, রাজনীতিক ও সাজেদা চৌধুরীর স্বামী গোলাম আকবর চৌধুরীর ইন্তেকাল

ভাষাসৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, রাজনীতিক ও সাজেদা চৌধুরীর স্বামী গোলাম আকবর চৌধুরীর ইন্তেকাল

golam akbar chy    23.11.15 ঢাকা,২৩ নভেম্বর ২০১৫ (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ সকাল সাড়ে দশটায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভাষাসৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, রাজনীতিক, কলামিস্ট এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর স্বামী গোলাম আকবর চৌধুরী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি …..রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিলো ৮৬ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ১ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুমের নামাজে জানাজা আজ বাদ আছর গুলশানের আজাদ মসিজদে অনুষ্ঠিত হবে। নামাজে জানাযা শেষে তাঁকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

গোলাম আকবর চৌধুরীর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি এডভোকেট আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া ও চীফ হুইপ আ.স.ম ফিরোজ, মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, সচিবসহ বিভিন্ন মহল পৃথক শোক বার্তায় গভির শোক প্রকাশ করেছেন।

গোলাম আকবর চৌধুরী ১৯৩১ সালের ১ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মাদার্শা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৪৬ সালে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে যোগদান করে রাজনৈতিক জীবনে প্রবেশ করেন। ১৯৪৮ সালে তিনি পূর্ব-পাকিস্তান ছাত্রলীগের সদস্যপদ লাভ করেন এবং ১৯৪৯ সালে পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। মহান ভাষা আন্দোলনে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ১৯৫২ সালে চট্টগ্রাম সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি গোলাম আকবর চৌধুরীর নেতৃত্বে চট্টগ্রামে ভাষা আন্দোলন পরিচালিত হয় এবং ঐতিহাসিক সাফল্য অর্জিত হয়।

তিনি ১৯৬৬ সালের এপ্রিলে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় চলে আসেন। ১৯৬৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা থেকে মুক্তিলাভের পর বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে তিনি সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করতেন।

তিনি ছিলেন জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহযোগী। একাত্তরের ২৫ মার্চের গণহত্যার পর পাকিস্তান সেনারা বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করলে আকবর চৌধুরী ২৭ মার্চ ভোরে কারফিউ প্রত্যাহারের পরই বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সাথে সাক্ষাত করে তাদের খোঁজখবর নেন। তিনি ৩০ জুন সপরিবারে কলকাতা পৌঁছেন। মুজিবনগর সরকারের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম ও প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমেদের সহায়তায় তিনি প্রবাসী সরকার সর্বদলীয় উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার নির্মম হত্যাকান্ডের শিকার হলে আকবর চৌধুরী আওয়ামী লীগকে পুনরুজ্জীবিত করার উদ্যোগ নেন। সে সময় তিনি আওয়ামী লীগের নেপথ্য নীতিনির্ধারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

গোলাম আকবর একজন রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও কলামিস্ট। তিনি নিয়মিত বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি করতেন। তাঁর কলমে উঠে এসেছে বাংলাদেশের রাজনীতির বিশ্বস্ত ও জীবন্ত চালচিত্র। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থ হচ্ছে, বাংলাদেশের রাজনীতি ও আওয়ামী লীগের ভূমিকা, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন, স্বাধীনতা ও আজকের বাংলাদেশ, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু এবং পলিটিকস ইন বাংলাদেশ এবং দি রোল অব আওয়ামী লীগ।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents