৩:২৯ পূর্বাহ্ণ - সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / গাজীপুর ও খুলনার ১৫ মের ভোটযুদ্ধ সামনে রেখে আলোচনার দামামা দেশজুড়ে

গাজীপুর ও খুলনার ১৫ মের ভোটযুদ্ধ সামনে রেখে আলোচনার দামামা দেশজুড়ে

গাজীপুর, ০৫ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): সিটি করপোরেশন নির্বাচন ঘিরে গাজীপুরে এখন আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ নানা দলের কেন্দ্রীয় ও আশপাশের জেলা-উপজেলার নেতা-কর্মীদের মেলা বসেছে। গাজীপুর ও খুলনার ১৫ মের ভোটযুদ্ধ সামনে রেখে আলোচনার দামামা দেশজুড়ে। দুই সিটিতে এখন জাতীয় নির্বাচনের আবহ।

গাজীপুর ঘুরে দেখা গেছে স্থানীয় নেতাকর্মীদের চেয়ে সংখ্যায় বেশি কেন্দ্রীয় ও বাইরের নেতাকর্মীরা। সিটি করপোরেশন এলাকার যেখানেই যাওয়া যাক, নিজ দলের প্রার্থীর পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় দেখা মিলবে তাদের।

সারা দেশের মানুষের তীক্ষè দৃষ্টি এই নির্বাচনের দিকে। জাতীয় নির্বাচনের কয়েক মাস আগে সরকার ও বিরোধী দল নিজেদের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের লড়াইয়ে নেমেছে এই নির্বাচনের মাধ্যমে। এখন পর্যন্ত জাতীয় ইস্যুগুলোই প্রাধান্য পাচ্ছে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে। আড়ালে থেকে যাচ্ছে প্রার্থীদের নির্বাচনী ইশতিহার ও সাধারণ ভোটারদের চাওয়া-পাওয়া।

নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গকে কেন্দ্র করে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও অপর বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির বাদানুবাদ ও পরস্পরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে উত্তাল সিটি নির্বাচনের এলাকা। এখানে প্রার্থী নয় দুই দলের উত্তাপ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সমানে বাড়ছে। নির্বাচন অনুষ্ঠান দৃশ্যত জাহাঙ্গীর আলম ও হাসান সরকারের মধ্যে হলেও আসল লড়াইটা হচ্ছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে।

গাজীপুর সিটি নির্বাচন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, এখানে দলীয় প্রার্থীর দিকে ভোটারদের আগ্রহ কম, কারণ উভয় দলের প্রার্র্থীদের ভোটারদের মন জয় করার মতো ক্যারিশমার অভাব। গাজীপুর সিটির প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে এই নির্বাচনে দলের গুণাগুণ বিবেচনা করেই ভোট দেবেন ভোটাররা। এ ছাড়া দলীয় ভোট ও দলের বাইরের ভোট নিজের বাক্সে আনার দক্ষতা ও তরুণ ভোটারদের মন জয় করার মাধ্যমে যে প্রার্থী দক্ষতা দেখাতে পারবেন তার মাথাতেই উঠবে নগরপিতার মুকুট।

৫৭টি ওয়ার্ডের দায়িত্ব পেয়ে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন বিএনপির ৫৭ জন কেন্দ্রীয় নেতা। প্রতিদিনই তাদের প্রচারণায় মুখরিত হয় অলিগলি। তাদের প্রচারণায় প্রথমে থাকছে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে ধানের শীষে ভোট কামনা। এ ছাড়া সরকারবিরোধী প্রচারণার মাধ্যমে ভোটারদের সহমর্মিতা পেতে জোরালো জনসংযোগ করছেন তারা।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগও বসে নেই। দলের কেন্দ্রীয় নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধারাবাহিক উন্নয়নের জন্য নৌকা প্রতীকে ভোট কামনা করছেন। তাদের দাবি- নৌকার প্রার্থী বিজয়ী হলে এলাকার উন্নয়ন হবে, সিটি কর্পোরেশনের সুবিধা পাবে ভোটাররা। উভয় দলের আশপাশের জেলা ও উপজেলার হাজার হাজার নেতাকর্মীর প্রতিদিন গাজীপুরে আসছেন। অংশ নিচ্ছে নিজ নিজ প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায়।

আয়তনের দিক দিয়ে দেশের সর্ববৃহৎ এই সিটির ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৪২৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন আগামী ১৫ মে। এখন পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচনপূর্ব প্রচারণা চলেছে।

২০১৩ সালে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে প্রায় দেড় লাখ ভোটের ব্যবধানে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আজমত উল্লাহ খানকে পরাজিত করেন বিএনপির প্রার্থী অধ্যক্ষ আবদুল মান্নান। সেবার আওয়ামী লীগের আরেক নেতা জাহাঙ্গীর আলমও দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি মনোনয়ন না পাওয়ায় তার অনুসারীরা তখন নিষ্ক্রিয় ছিলেন বলে অভিযোগ আছে।

এবার জাহাঙ্গীর মনোনয়ন পাওয়ায় আজমত উল্লাহর অনুসারীরা ক্ষুব্ধ। তবে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা দুজনকে নিয়ে বসে নির্দেশ দিয়েছেন মান-অভিমান ভুলে একসঙ্গে কাজ করতে।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents