৩:৩৫ পূর্বাহ্ণ - শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / রাজনীতি / অন্যান্য দলের খবর / খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সৌদি আরবে অর্থপাচারের শাস্তি দাবি : ইসলামী ঐক্যজোট

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সৌদি আরবে অর্থপাচারের শাস্তি দাবি : ইসলামী ঐক্যজোট

ঢাকা, ০৭ জানুয়ারী ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): ১৮ বছর বিএনপির সঙ্গে জোটবদ্ধ থাকা কওমি মাদ্রাসাকেন্দ্রীক রাজনৈতিক দল ইসলামী ঐক্যজোটের নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তাকে আখ্যা দিয়েছেন ‘মানবতার মূর্ত’ প্রতীক হিসেবে। একই সঙ্গে সৌদি আরবে অর্থপাচারের বিচার দাবি করে কার্যত তারা খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থার দাবিও করেছেন। কারণ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরবে অর্থ পাচারের অভিযোগ তুলেছেন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধেই। রবিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ইসলামী ঐক্যজোটের ‘মহাসমাবেশে’ এই দাবি জানানো হয়।

১৯৯৯ সালে আওয়ামী লীগবিরোধী আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি, জামায়াত ও হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টির সঙ্গে জোটবদ্ধ হয় ইসলামী ঐক্যজোট। কট্টর আওয়ামী লীগবিরোধী হিসেবেও পরিচিত এই দলটি। নেতারা দীর্ঘদিন ধরেই আওয়ামী লীগের তীব্র সমালোচনা করে আসছিল। ২০১৩ সালে রাজধানীতে হেফাজতে ইসলামের অবরোধের সময় এই দলটির নেতা-কর্মীরাও সক্রিয় ভূমিকা পালন করে। হেফাজতের নেতৃত্বেও ইসলামী ঐক্যজোটের নেতারা রয়েছেন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বিএনপির সঙ্গেই বর্জন করে ইসলামী ঐক্যজোট। তবে ২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে দলটি। আর এরপর থেকেই সরকারের সঙ্গে তাদের যোগাযোগের বিষয়ে নানা জল্পনা কল্পনা তৈরি হয়। আর জোট ত্যাগের দ্বিতীয় বছর পূর্তিতে এই মহাসমাবেশ ডাকে দলটি।

এই সমাবেশে কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতি এবং রোহিঙ্গাদেরকে প্রতি ‘সুবিচার’ করে তাদের আশ্রয় দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন সমাবেশের প্রায় সব বক্তারাই।

সমাবেশে বক্তব্যে উঠে আসে সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে অর্থ পাচারের অভিযোগের বিষয়টিও। গত ৭ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এই অর্থপাচারের অভিযোগ আনেন। এরপর আওয়ামী লীগ ও তার শরিক দলের বাইরে এই প্রথম অন্য কোনো দল এই বিষয়টি সামনে নিয়ে আসল।

‘খালেদার’ বিচার দাবি

ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ নেজামী বলেন, ‘সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে যে অর্থ পাচার করা হয়েছে তা জাতীয় অর্থনীতির জন্য মারাত্মক আঘাত স্বরূপ। দেশের সম্পদ যারা লুণ্ঠন করেছে তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।’

পরোক্ষভাবে সাবেক জোটনেত্রীর শান্তি দাবি করে নেজামী বলেন, ‘এই পাচারকৃত অর্থ ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি এবং এই ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে তাদের বিচার দাবি জানাচ্ছি।’

ইসলামী ঐক্য জোটের মহাসচিব মুফতি মোহাম্মদ ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘সৌদিসহ বিভিন্ন দেশে যে টাকা পাচার হয়েছে, সেই টাকা বাংলাদেশে ফেরত এনে দেশের উন্নয়ন করতে হবে। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে না, তাদের বিচার করতে হবে।’

আওয়ামী লীগের কট্টর সমালোচক ইসলামী ঐক্যজোটের প্রয়াত নেতা ফজলুল হক আমিনীর ছেলে ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হাসানাত আমিনী বলেন, ‘বিএনপি-আওয়ামী লীগ বুঝি না, মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের সবাইকে বিচার করতে হবে।’
‘বিএনপির সঙ্গ ছেড়ে ইসলামের লাভ হয়েছে’

ইসলামী ঐক্যজোট বিএনপির সঙ্গ ছাড়ায় দেশে ইসলামের লাভ হয়েছে বলেও দাবি করেন মুফতি আমিনীর ছেলে আবুল হাসানাত আমিনী। তিনি বলেন, ‘আমরা ২০ দল থেকে বের হয়েছি বলে হাইকোর্ট থেকে মূর্তি দুর হয়েছে, ২০ দল থেকে বের হয়েছি বলে পাঠ্যসূচি থেকে নাস্তিক্যবাদী লেখা সংশোধিত হয়েছে, আমরা ২০ দল থেকে বের হয়েছি বলে কওমি মাদ্রাসার সনদের মান দেয়া হয়েছে।’

মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘ইসলামী ঐক্যজোট এ দেশে ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়, এদেশের আমুল পরিবর্তন আনতে চায়। এদেশের ওলামায়ে ইকরামগণও বাংলাদেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে চায়। সেই লক্ষ্যে ইসলামী ঐক্যজোট ২০ দলীয় জোট থেকে বের হয়ে এসেছে।’

প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসা

সমাবেশে অংশ নেয়া প্রায় সব বক্তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে বক্তব্য রাখেন।

মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী বলেন, ‘বর্তমান সরকার কর্তৃক কওমি মাদ্রাসা সনদের মান প্রদান একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ ও সময়োপযোগী চিন্তার বহিঃপ্রকাশ। এ জন্য ইসলামী ঐক্যজোট মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছে।

মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হচ্ছেন। আমরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। সেই সঙ্গে রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ জোন গড়ে তাদেরকে নিরাপত্তা দেয়ার দাবি জানাই।’

মুফতি আমিনীর ছেলে আবুল হাসানাত বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের সসম্মানে রাখার দাবি করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী তার সুব্যবস্থা করার জন্য তাকে সাধুবাদ জানাই। তিনি আজ মাতবতার মূর্ত প্রতীক হিসেবে আবির্ভুত হয়েছেন। সারা বিশ্ব তার প্রশংসা করছে।’

ইসলামী ঐক্য জোটের ভাইস চেয়ারম্যান মধুপুরের পীর মাওলানা আব্দুল হামিদ মধুপুরী কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতি না দেয়ায় বিএনপির সমালোচনা করেন। আওয়ামী লীগ এই দাবি পূরণ করায় তিনি প্রশংসা করেন। সেই সঙ্গে ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে তা বাস্তবায়নের দাবিও জানান। বলেন, ‘বিএনপি ওয়াদা করেছিলেন তার বাস্তবায়ন করে নাই। আপনি যদি আগামী দিনে ক্ষমতায় থাকতে চান তাহলে আলেম ওলামাদের প্রাণের দাবি বাস্তবায়ন করুন।’

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন জোটের যুগ্ম মহাসচিব মুফতি মো. তৈয়্যব হোসাইন, যুগ্ম মহসচি মাওলানা আহলুল্লাহ ওয়াছেল, ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা জসিম উদ্দিন, আবু তাহের জেহাদী, সহকারী মহাসচিব মাওলানা ফারুক আহমেদ প্রমুখ।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents