৭:২৪ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / মন্ত্রিসভা বালাইনাশক আইন-২০১৭ এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে

মন্ত্রিসভা বালাইনাশক আইন-২০১৭ এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে

ঢাকা, ৩০ অক্টোবর, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদ সভায় বালাইনাশক আইন ভঙ্গ করলে জেল-জরিমানার বিধান রেখে বালাইনাশক আইন-২০১৭ এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভায়। সভা শেষে বিকালে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।
শফিউল আলম বলেন, ‘আইনটি ১৯৭১ সালের অধ্যাদেশ আকারে জারি করা হয়, যা পরিমার্জন করে বাংলায় অনুবাদ করা হয়েছে। অধ্যাদেশ বালাইনাশক বা কীটনাশকের বিষয় উল্লেখ ছিল কিন্তু নতুন আইনে ইঁদুরের উপদ্রবসহ নানা ধরনের রোগ সংযুক্ত করা হয়েছে। আইনের ২৯ ধারায় বলা হয়েছে, কেউ যদি বালাইনাশকের বিজ্ঞাপন ভুলভাবে উপস্থাপন করে তবে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে একবছরের কারাদণ্ড। দ্বিতীয়বার অপরাধ করলে জরিমানা হবে দুই লাখ অনাদায়ে দুই বছরে কারাদণ্ড।’

তিনি আরও বলেন, ‘আইন বাস্তবায়নের জন্য একজন পরিদর্শক থাকবেন। তাকে কাজে বাধা দিলে ৭৫ হাজার থেকে এক লাখ জরিমানা এবং সর্বনিম্ন এক বছর ও সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড হবে। এছাড়া বালাইনাশক বিক্রেতা ডিলারকে মিথ্যা নিশ্চয়তা দিলে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে।’

আইনের ৩৩ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে, পরিদর্শকের লিখিত অনুমতি ছাড়া কেউ মামলা করতে পারবে না।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘বালাইনাশকের দাম সরকার প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করবে। গায়ে লেখা দামে বিক্রি করা যাবে না। তবে মামলার বিষয় নিষ্পত্তির জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে পারবে সরকার।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন থেকে প্রতিবছর ৫ ফেব্রুয়ারি জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালিত হবে। এটি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের পরিপত্রের ‘খ’ ক্রমিকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব পাস করা হয়েছে। যদিও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ২২ মার্চ প্রস্তাব করে। কিন্তু ফেব্রুয়ারি মাস ভাষার মাস ও ৫ ফেব্রুয়ারি জাতীয় গ্রন্থাগার ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। তাই এই দিনকেই জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস হিসেবে পালন করা হবে।

জানা গেছে, সভায় জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে মন্ত্রিসভা বৈঠক সম্পর্কিত প্রতিবদেন উপস্থাপন করা হয়। এ সময়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক হয়েছে ৯টি, সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে ৮০টি, বাস্তবায়ন হয়েছে ৫৯টি বা ৭৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ, বাস্তবায়নের অপেক্ষায় আছে ২১টি বা ২৮ দশমিক ২৫ শতাংশ, চুক্তি অনুমোদন হয়েছে সাতটি এবং সংসদে আইন পাস হয়েছে ছয়টি।

গত বছর একই সময়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক হয়েছে ৮টি, সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে ৫৬টি, বাস্তবায়ন হয়েছে ৩৬টি বা ৬৪ দশমিক ২৯ শতাংশ, বাস্তবায়নের অপেক্ষায় আছে ২০টি বা ৩৫ দশমিক ৭১ শতাংশ, চুক্তি অনুমোদন হয়েছে চারটি এবং সংসদে আইন পাস হয়েছে ১০টি।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents