৬:৪৮ পূর্বাহ্ণ - সোমবার, ১৯ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / হাসপাতালে বেহাল ‘আসামি’ তাপস পাল

হাসপাতালে বেহাল ‘আসামি’ তাপস পাল

বিনোদন ডেস্ক, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): রোজ ভ্যালি মামলায় সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হয়ে জেলের ঘানি টেনে উঠতে পারেননি ওপার বাংলার বহু হিট ছবির নায়ক ও কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ তাপস পাল। অসুস্থ হয়ে কলকাতার ভুবনেশ্বরের বেসরকারি হাসপাতালের ৩৩২ নম্বর কেবিনে বেহাল দশায় পড়ে আছেন তিনি। পাশে নেই অভিনয় জীবনের কোনও সাথী কিংবা দলের কোনও নেতাকর্মী। আছেন শুধু ‘অভাগা’ স্ত্রী। চিকিৎসাধীন তাপসের সব কাজেকর্মে স্ত্রীই একমাত্র অবলম্বন।আইনজীবীর খরচ, চিকিৎসা খরচ সবই মেটাচ্ছেন তিনি।

দিনে ৪২টা ওষুধ খেতে হয় তাপসকে। মাত্রাতিরিক্ত মধুমেহ-সহ নানান শারীরিক সমস্যার জন্য নিয়মিত ফিজিওথেরাপি চলছে তাঁর। স্ত্রী নন্দিনী জানান, ‘খুবই অসুস্থ তাপস। চিকিৎসকেরা বলছেন, ওঁর সুস্থ হতে সময় লাগবে। হাঁটতে-চলতে এখন আর পারেন না। কোনও মতে ধরে ধরে বিছানায় বসাতে হয়। ক্ষীণ হচ্ছে চোখের দৃষ্টিও।খুব একটা কথাও বলেন না। ওঁর শুধু একটাই প্রশ্ন কবে ছাড়া পাব।’

অভিনয় জীবনে বহুবার জেলে যেতে হয়েছে ‘গুরু দক্ষিণা’ ছবির নায়ককে। সেটি শুধু অভিনয়ের খাতিরেই। কিন্তু বাস্তবে জেলে গিয়ে হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন বন্দি জীবন আসলে বড়ই কষ্টের। জেলের ধকল সইতে না পেরে তাই সোজা হাসপাতালে। দিনরাত শুয়েই কাটছে তাঁর। আর কাটছে হাহাকারের মধ্যে। সারাদিন হাসপাতালের কেবিনে শুয়ে থাকা হতাশ তাপসের এখন একটাই প্রশ্ন “কবে জামিন পাবো?”

তৃণমূলের কোনও নেতার সঙ্গে তাপস কিংবা তাঁর স্ত্রী যোগাযোগ হয় না বলে শনিবার হাসপাতাল থেকে ফোনে জানান নন্দিনী। হয়তো দলের কেই তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না বলে মনে করেন তাপসপত্মী। তবে দল তাদের পাশে আছে বলে বিশ্বাস করেন তিনি।

তাপসের অভিনয় জীবনের দীর্ঘদিনের সহকর্মী শতাব্দী রায়। বর্তমানে তিনি তৃণমূলের দলীয় সহকর্মীও। তাপসকে হাসপাতালে দেখতে যাননি শতাব্দীও। কেন যাননি, প্রশ্নের জবাবে শতাব্দী বলেন, ‘যাওয়ার পরিকল্পনাই হয়নি কখনও। তবে দল যেতে বললে অবশ্যই যাব।’

সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই খাতা-কলমে জেল হেফাজতেই রয়েছেন তৃণমূলের সাংসদ তাপস পাল। দেখতে দেখতে পার হয়েছে আট মাস। জেলে গিয়েই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সেই থেকে নায়কের একমাত্র সঙ্গিনী স্ত্রী নন্দিনী। বন্দিজীবনের অধিকাংশ সময়ই কেটেছে তার হাসপাতালে। দিনের অধিকাংশ সময়ই হতাশা আর কান্নাকাটি করেই কাটছে নায়কের।

হতাশ হবেনই বা না কেন? একই হাসপাতালে একই মামলায় বিচারাধীন বন্দি হিসাবে থাকা তৃণমূলের আরেক সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জামিন পেয়েছেন মাস তিনেক আগে। জামিন পেয়ে তিনি এখন পুরোদমে রাজনীতিতে ব্যস্ত। বন্দি দুই নেতাকেই দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  তার পর আর পাত্তা নেই নেতাদের।

অভিনয় জীবনে মত মসৃণ নয় তাপস পালের রাজনৈতিক জীবন। ২০০৯ সালের ভারতীয় সাধারণ নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে টিকিট নিয়ে নির্বাচিত হয়ে কৃষ্ণনগর থেকে এমপি হন তিনি। ২০১৪ সালে  কেন্দ্রীয় সরকারের নির্বাচনের কিছুদিন আগে একটি নির্বাচনী প্রচার সভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। পরে ওই বক্তৃতার জন্য ক্ষমাও চান। ২০১৬ সালের শেষ দিকে আবারও সংবাদের শিরোনাম হন নায়ক। রোজ ভ্যালি নামে একটি চিট ফান্ডের সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হন তিনি। সেই থেকে টেনে চলেছেন জেলের ঘানি।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents