২:০৬ পূর্বাহ্ণ - বুধবার, ২১ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / রাজনীতি / আওয়ামী লীগ / বাংলাদেশে অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্পায়নে ইউনিডোর সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে : লি ইয়ং

বাংলাদেশে অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্পায়নে ইউনিডোর সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে : লি ইয়ং

ঢাকা, ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ইং (ক্রাইম নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): জাতিসংঘের শিল্প উন্নয়ন সংস্থা (ইউনিডো)-এর মহাপরিচালক লি ইয়ং গতকাল বলেছেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্পায়নের জন্য অবকাঠামো, জ্বালানী নিরাপত্তা ও উদ্ভাবনীখাতে বাংলাদেশের আরও বিনিয়োগ প্রয়োজন এবং এক্ষেত্রে ইউনিডো সহায়তা অব্যাহত রাখবে।
গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে লি ইয়ং বলেন, ‘বাংলাদেশের উচিত অবকাঠামো, জ্বালানী নিরাপত্তা ও উদ্ভাবনী খাতে বিনিয়োগ বাড়ানো এবং ইউনিডো এক্ষেত্রে সবধরনের সহায়তা করবে।’
‘বাংলাদেশে অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্পোন্নয়ন এবং এসডিজি-৯ অর্জন’ শীর্ষক এই সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্প মন্ত্রী আমির হোসেন আমু এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়কারি মোঃ আবুল কালাম আজাদ।
শিল্প মন্ত্রনালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুষেন চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে এ সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম।
ইউনিডো’র মহাপরিচালক লি ইয়ং বলেন, ১৬ কোটি জনসংখ্যা নিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে দারিদ্র বিমোচনে খুবই গূরুত্বপূর্ন অবদান রেখেছে।
লি ইয়ং আরও বলেন, তৈরি পোশাক, টেক্সটাইল, হিমায়িত মৎস্য সহ বিভিন্ন খাতে পন্যের মানোন্নয়নের লক্ষ্যে ইউনিডো বাংলাদেশকে সহায়তা করেছে। এসব খাতে বর্তমানে মানসম্মত পন্য উৎপাদিত হচ্ছে এবং বিশ্ববাজারে প্রবেশাধিকার পাচ্ছে।
শিল্পখাতে বাংলাদেশের অগ্রগতিতে তার সন্তুষ্টির কথা জানিয়ে এক্ষেত্রে ইউনিডো সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
প্রধান অতিথি শিল্প মন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্পোন্নয়ন আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি অর্জনের চালিকা শক্তি।
বাংলাদেশের শিল্পনীতি- ২০১৬ এসডিজি-৯ এর সাথে সম্পর্কিত উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, শিল্পনীতি -২০১৬- এর উদ্ধেশ্য স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী শিল্পায়নের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে শিল্পায়নের দিক থেকে উন্নত এবং মধ্যম আয়ের পর্যায়ে রূপান্তর করা।
তিনি বলেন, এমডিজির বিভিন্ন লক্ষ্য অর্জনের জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পুরস্কৃত করেছে। উদাহরন হিসাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেওয়া ইউনেস্কোর ‘পিস ট্রি এওয়ার্ড’, জাতিসংঘের পরিবেশ পুরস্কার ‘চ্যাম্পিয়নস অব দ্যা আর্থ’ এবং জনস্বাস্থ্য খাতে সাফল্যের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পুরস্কারের কথা তিনি উল্লেখ করেন।
মূল বক্তব্যে ড. শামসুল আলম বলেন, ২০১৭ তেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত এসডিজি বাস্তবায়নে বাংলাদেশের অতিরিক্ত ৯২৮ দশমিক ৪৮ বিলিয়ন মার্কিণ ডলার প্রয়োজন হবে।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents