৫:৩১ পূর্বাহ্ণ - বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / খেলাধুলা / ক্রিকেট / সাকিবের স্পিন জাদুতে মিরপুরে আরেক ইতিহাস

সাকিবের স্পিন জাদুতে মিরপুরে আরেক ইতিহাস

স্পোর্টস ডেস্ক, ৩০ আগষ্ট, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): টেস্টের প্রতিটা বাঁকে মজা, উত্তেজনা আর নাটক। ঢাকা টেস্ট তেমনই এক অনন্য ম্যাচ, যারা দেখেছেন তারা ভাগ্যবান। গত চারদিনে কত কীইনা ঘটেছে। কখনও বাংলাদেশ এগিয়ে থেকেছে, কখনওবা অস্ট্রেলিয়া। কখনও মনে হয়েছে না, এ ম্যাচ জিততে পারবে না টাইগররা।

তবে সব উত্তেজনা আর অনশ্চিয়তা পাশ কেটে অবশেষে মনে রাখার মতো জয় তুলে নিল বাংলাদেশ। যে জয়ে সাকিব মহানায়ক। ব্যাট হাতে ৮৪ রানের লড়াকু ইনিংস, এরপর পাঁচ উইকেট। কঠিন পরিস্থিতি ফের ত্রাণকর্তা। দেখালেন স্পিন জাদু। আর সেই জাদুতে অজি ব্যাটিং ধূলিস্মাৎ, এবারও পাঁচ উইকেট। সঙ্গে আলো ছড়ালেন তাইজুল, মিরাজরাও। আর তাতেই অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারিয়ে আরেকবার চমক দেখালো টাইগাররা।

২০০৬ সালে ফতুল্লায় জয়ের সুযোগ আসলেও শেষমেশ হারতে হয়েছিল টাইগারদের। ১১ বছর পর স্পিনারদের কৃতিত্বে সেই আফাসোস ঘোঁচালো বাংলাদেশ। পাঁচ টেস্টে অজিদের বিপক্ষে এটাই প্রথম জয় বাংলদেশের। গতবছর অক্টোবর ঢাকাতে ইংল্যান্ড হারিয়েছিল মুশফিকরা। ওটাই ছিল কোনো বড় দলের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট জয়।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ করেছিল ২৬০ রান। জবাবে অজিদের সংগ্রহ ছিল ২১৭। প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানে লিড নেয় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ২২১ রানে অলআউট হলে অস্ট্রেলিয়ার সামনে টার্গেট দাঁড়ায় ২৬৫ রান। এই উইকেটে ২৬৫ রান ছোট টার্গেট ছিল না। কিন্তু সুযোগ কাজে লাগাতে না পারায় একটা সময় মিরপুরে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ।

বুধবার তৃতীয় দিন শেষে দুই উইকেট হারিয়ে ১০৯ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশকে ভয় ধরিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার ৭৫ ও স্টিভেন স্মিথ ২৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন। আজ চুতুর্থ দিনে অজিদের দরকার ছিল ১৫৬ রান। আর বাংলাদেশের চাওয়া ৮ উইকেট। ম্যাচের পাল্লা অজিদের দিকে ঝুকে ছিল অনেকটা- এটাই বলেছেন বেশিরভাগ ক্রিকেট পণ্ডিত।

তবে আত্মবিশ্বাস ছিল টাইগারদের। আগের দিন তামিম সংবাদ সম্মেলনে সেই আত্মবিশ্বাসের কথা জানিয়েছিলেন। বলেছিলেন, বুধবার প্রথম দিকে ওয়ার্নার ও স্মিথকে বিদায় করতে পারলে একটা কিছু হবে।

তবে ওয়ার্নার-স্মিথ জুটি ভাঙতে সময় লাগছিল। মনে হচ্ছিলো, না হবে না। তখনই জ্বলে ওঠেন সাকিব। জোড়া আঘাত। প্রথমে ১১২ রানে ফেরান ওয়ার্নারকে। কিন্তু এরপরও শঙ্কায় ছিল বাংলাদেশ। কারণ স্মিথ ছিলেন অক্ষত। তবে বেশি সময় অজি অধিনায়ককে উইকেটে থাকতে দেননি সাকিব। ৩৭ রানে স্মিথকে ফিরিয়ে দলকে ম্যাচে ফেরান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব।

কিছুটা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছিলেন হ্যান্ডসকম ও ম্যাক্সওয়েল। এ জুটিকেও দাঁড়াতে দেননি তাইজুল আর সাকিব। প্রথমে ১৫ রানে হ্যান্ডসকমকে ফেরান তাইজুল। এরপর ১৪ রানে সাকিবের বলে ম্যাক্সওয়েল ফিরলে জয় সময়ের ব্যাপার দাঁড়ায়।

৭ উইকেটে ১৯৮ রান নিয়ে স্বস্তির লাঞ্চে যায় টাইগাররা। তখন অস্ট্রেলিয়ার দরকার ছিল ৬৭ রান। আর বাংলাদেশের দরকার ৩ উইকেট। লাঞ্চের পরপরই আঘাত হানেন সাকিব। ওয়াডকে ৪ রানে বিদায় করেন সাকিব। এ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসেও ৫ উইকেটে নেওয়ার কৃতিত্ব দেখান সাকিব।

তবে শেষদিকে নাথান লায়ন-কামিন্স জুটি জয়কে বিলম্বিত করে রেখেছিলেন। কিছুটা চিন্তায়ও ফেলেছিলেন। কারণ রান তো খুব বেশি না। লায়নকে ১৪ রানে আউট করে দারুণ স্বস্তি আনেন মিরাজ। তবে এরপরও কামিন্স সমানে লড়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু রানে তাইজুলের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরলে ২৪৪ রানে অলআউট হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ ঐতিহাসিক জয় তুলে নেয় ২০ রানে।

৮৫ রানে ৫ উইকেট নেন সাকিব। ৬০ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তাইজুল। দুই উইকেট নেন মিরাজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ২৬০ (৭৮.৫ ওভার)

(তামিম ইকবাল ৭১, সৌম্য সরকার ৮, ইমরুল কায়েস ০, সাব্বির রহমান ০, সাকিব আল হাসান ৮৪, মুশফিকুর রহিম ১৮, নাসির হোসেন ২৩, মেহেদী হাসান মিরাজ ১৮, তাইজুল ইসলাম ৪, শফিউল ইসলাম ১৩, মোস্তাফিজুর রহমান ০*; জস হ্যাজলেউড ০/৩৯, প্যাট কামিন্স ৩/৬৩, নাথান লায়ন ৩/৭৯, অ্যাশটন আগার ৩/৪৬, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ১/১৫)।

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস: ২১৭ (৭৪.৫ ওভার)

(ডেভিড ওয়ার্নার ৮, ম্যাট রেনশ ৪৫, উসমান খাজা ১, নাথান লায়ন ০, স্টিভেন স্মিথ ৮, পিটার হ্যান্ডসকম্ব ৩৩, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২৩, ম্যাথু ওয়েড ৫, অ্যাশটন আগার ৪১, প্যাট কামিন্স ২৫, জস হ্যাজলেউড ৫; শফিউল ইসলাম ০/২১, মেহেদী হাসান মিরাজ ৩/৬২, সাকিব আল হাসান ৫/৬৮, তাইজুল ইসলাম ১/৩২, মোস্তাফিজুর রহমান ০/১৩, নাসির হোসেন ০/৩)।

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ২২১ (৭৯.৩ ওভার)

(তামিম ইকবাল ৭৮, সৌম্য সরকার ১৫, তাইজুল ইসলাম ৪, ইমরুল কায়েস ২, মুশফিকুর রহিম ৪১, সাকিব আল হাসান ৫, সাব্বির রহমান ২২, নাসির হোসেন ০, মেহেদী হাসান মিরাজ ২৬, শফিউল ইসলাম ৯, মোস্তাফিজুর রহমান ০*; জস হ্যাজলেউড ০/৩, প্যাট কামিন্স ০/৩৮, নাথান লায়ন ৬/৮২, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ০/২৪, অ্যাশটন আগার ২/৫৫, উসমান খাজা ০/১)।

অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় ইনিংস: ২৪৪ (৭৫.৫ওভার)

(ডেভিড ওয়ার্নার ১১২, ম্যাট রেনশ ৫, উসমান খাজা ১, স্টিভেন স্মিথ ৩৭, হ্যান্ডসকম ১৫, ম্যাক্সওয়ের ১৪,  লায়ন ১২,কামিন্স ; মেহেদী হাসান মিরাজ ২/৮০, নাসির হোসেন ০/২, সাকিব আল হাসান ৫/৮৫, তাইজুল ইসলাম ৩/৬০, মোস্তাফিজুর রহমান ০/৮)।

ফল: বাংলাদেশ ২০ রানে জয়ী

সৌজন্যে ঢাকাটাইমস

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents