৯:০৬ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / কণ্ঠশিল্পী মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বারের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল অবস্থায় আছে

কণ্ঠশিল্পী মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বারের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল অবস্থায় আছে

ঢাকা, ২৮ আগষ্ট, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বাংলা গানের জীবন্ত কিংবদন্তি, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠশিল্পী ও মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বারের শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল অবস্থায় আছে।

বিএসএমএমইউ’র পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বর্তমানে শিল্পী আব্দুল জব্বারের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। গত শনিবার তার অবস্থার অবনতি হলেও গতকাল রোববার আবার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। আজও তার শারীরিক অবস্থা তেমনই আছে।

কোটি বাঙালীর জনপ্রিয় এ কণ্ঠশিল্পী দীর্ঘদিন ধরে কিডনি, হার্ট, প্রস্টেট ও ডায়াবেটিসসহ বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) প্রায় ৩ মাস ধরে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ১ আগস্ট থেকে তাকে বিএসএমএমইউ’র নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আইসিইউ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক দেবব্রত বণিক বলেন, আবদুল জব্বারের শরীর আজ স্থিতিশীল অবস্থায় আছে। তবে এ অবস্থার আরো উন্নতি হতে কত সময় লাগবে, সেটা বলা যাচ্ছে না। তাকে যে চিকিৎসা বা ওষুধ দেয়া হচ্ছে, তা সেভাবে গ্রহণ করছে না, ওষুধ খুব ধীরে কাজ করছে। হাসপাতালে অবস্থানরত তার স্ত্রী হালিমা জব্বার দেশবাসীর কাছে তার স্বামীর জন্য দোয়া প্রার্থনা করে বলেন, শিল্পীর শারীরিক অবস্থা আজ ভাল। চিকিৎসকরা তাকে সুস্থ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি দেশবাসীর কাছে তার জন্য দোয়া চান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্প্রতি শিল্পী আবদুল জব্বারের চিকিৎসার জন্য ২০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন সংগঠনও তার চিকিৎসায় সহযোগিতা করছে।

অসংখ্য কালজয়ী গানে কণ্ঠ দেয়া এ শিল্পী মুক্তিযুদ্ধের সময় কলকাতার বিভিন্ন ক্যাম্পে গিয়ে গান গেয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্বুদ্ধ করেছেন। ওই দুঃসময়ে তিনি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে অসংখ্য গান গেয়েছেন। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে এ শিল্পীর গাওয়া বিভিন্ন গান মুক্তিযোদ্ধাদের প্রেরণা ও মনোবল বাড়িয়েছে। গলায় হারমোনিয়াম ঝুলিয়ে ভারতের বিভিন্ন স্থানে গণসংগীত গেয়ে প্রাপ্ত ১২ লাখ টাকা তিনি স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের ত্রাণ তহবিলে দান করেছেন। ১৯৭১ সালে তিনি মুম্বাইয়ে ভারতের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য জনমত তৈরিতেও নিরলসভাবে কাজ করেছেন।

আব্দুল জব্বার ‘তুমি কি দেখেছ কভু জীবনের পরাজয়..’, ‘সালাম সালাম হাজার সালাম, সকল শহীদ স্মরণে..’, ‘জয় বাংলা বাংলার জয়..’ ‘ওরে নীল দরিয়া আমায় দেরে দে ছাড়িয়া..’,সহ অসংখ্য কালজয়ী গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। এখানে উল্লেখিত তার গাওয়া ৪টি গানের প্রথম ৩টি গান আবার ২০০৬ সালে মার্চ মাস জুড়ে অনুষ্ঠিত বিবিসি বাংলার শ্রোতাদের বিচারে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ২০টি বাংলা গানের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে।

জীবন্ত এ কিংবদন্তী ১৯৭৩ সালে ‘বঙ্গবন্ধু স্বর্ণপদক’, ১৯৮০ সালে একুশে পদক, ১৯৯৬ সালে স্বাধীনতা পদক এবং জহির রায়হান চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ ছোট-বড় অনেক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents