ভারতের শীর্ষস্থানীয় এক পত্রিকাও জানিয়েছে, অধিনায়ক বিরাট কোহলির পছন্দের তালিকায় ছিলেন শেবাগ! তাহলে কেন কোচ হতে পারেননি তিনি? কারণ কোচের দায়িত্ব পাওয়ার জন্য সহযোগী হিসেবে আরও দুজনকে নিতে চেয়েছিলেন শেবাগ। তার পছন্দের তালিকায় ছিলেন ফিজিও থেরাপিস্ট অমিত তিয়াগি ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের সহকারী কোচ মিথুন মানহাস। কিন্তু দল ও বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) বর্তমান স্টাফে সন্তুষ্ট থাকায় শেবাগের প্রস্তাব আমলে নেয়নি। এ কারণেই ভারতের কোচ হতে পারেননি শেবাগ।

অনেক নাটকীয়তার পর ভারত দলের কোচ হয়েছেন শাস্ত্রী। পাঁচ জন আবেদনকারীর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন ভারতের ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির তিন সদস্য সৌরভ গাঙ্গুলি, ভিভিএস লক্ষণ ও শচিন টেন্ডুলকার। তারাই নতুন কোচ হিসেবে বেছে নিয়েছেন সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক শাস্ত্রীকে। কিন্তু একটু এদিক-ওদিক হলেই শাস্ত্রীর জায়গায় থাকতে পারতেন শেবাগ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ভারত দলের পরবর্তী কোচ হিসেবে শেবাগকে দেখার সম্ভাবনা ছিল প্রবল। কোহলি নিজেও জানিয়েছেন সাবেক কোনো ক্রিকেটারকেই কোচ হিসেবে দেখতে চান তারা। এছাড়া শেবাগকে আবেদন করতেও নাকি উৎসাহিত করেছেন কোহলি।