৩:৫৩ পূর্বাহ্ণ - শনিবার, ১৭ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / ওষুধ কিনতে বের হয়ে অপহরণের কথা পুলিশকে জানিয়েছেন কবি ও লেখক ফরহাদ মজহার : যুগ্মকমিশনার আবদুল বাতেন

ওষুধ কিনতে বের হয়ে অপহরণের কথা পুলিশকে জানিয়েছেন কবি ও লেখক ফরহাদ মজহার : যুগ্মকমিশনার আবদুল বাতেন

ঢাকা, ০৪ জুলাই, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম):আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্মকমিশনার আবদুল বাতেন বলেছেন, সোমবার ভোরে রাজধানীর শ্যামলীর বাসা থেকে ওষুধ কিনতে বের হয়ে অপহরণের কথা পুলিশকে জানিয়েছেন কবি ও লেখক ফরহাদ মজহার। তিনি দাবি করেন, বাসা থেকে বের হওয়ার পরই কয়েকজন লোক তাকে জোর করে গাড়িতে তুলে চোখ মুখ বেঁধে ফেলে।

ফরহাদ মজহারকে অপহরণের বিষয়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত যে বক্তব্য দেয়া হয়েছে তাতে ওষুধ কেনার কথা বলা হয়নি। ফরহাদ মজহারকে ‘অপহরণ’ এর বিষয়টি জানান তার ঘনিষ্ঠদের একজন রোমেল হোসেন। তিনি বলেন, ‘ভোরের দিকে ফরহাদ ভাই ঘুম থেকে ওঠেন। বাসার নিচ থেকে তাকে কেউ একজন ডাক দেন এবং ডাক শুনে তিনি চার তলা থেকে নিচে নামেন। এরপর তাকে আর পাওয়া যায়নি।

এরপর তিনি ফোনে দুই-তিনবার ফরিদা আপার সঙ্গে কথা বলেছেন। এর মধ্যে একবার তিনি বলেন, ওরা আমাকে নিয়ে যাচ্ছে, আমাকে মেরে ফেলবে। এরপর তিনি আবার ফোনে কথা বলেন। তখন তিনি জানিয়েছেন তারা ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ চায়।’

ফরহাদ মজহারের মোবাইল ফোনটি ট্র্যাক করেই তাকে সন্ধান করতে থাকে আইনশৃৃঙ্খলা বাহিনী। এক পর্যায়ে জানা যায় তিনি খুলনায় অবস্থান করছেন। আর খুলনা নিউমার্কেট এলাকায় ব্যার, পুলিশের তল্লাশি চলার সময় জানা যায় তিনি স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে খেয়েছেন। এরপর সেই রেস্টুরেন্টে যাওয়ার পর কর্মীরা জানান, তিনি খেয়ে বের হয়ে গেছেন।

এরপর গভীর রাতে যশোরের অভয়নগর এলাকায় খুলনা থেকে ঢাকার পথে হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে যশোরের অভয়নগরে উদ্ধার করা হয় ফরহাদ মজহারকে। বাসে মিস্টার গফুর নামে তিনি টিকিট কেটেছিলেন বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

রাতে অভয়নগর থানায় রাখার পর সকালে ফরহাদ মজহারকে রাজধানীর আবাদর থানায় নিয়ে আনা হয়। সেখান থেকে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাকে আনা হয় মিন্টো রোডের গোয়েন্দা কার্যালয়ে। ঘণ্টা তিনেক পরে এ বিষয়ে ব্রিফিং করেন গোয়েন্দা কর্মকর্তা আবদুল বাতেন।

কবি সাহিত্যিক কলামিষ্ট ফরহাদ মজহারকে একটি অপহরণ মামলায় ভিকটিম হিসেবে তাকে আদালতে পাঠানো হবে। সেখানে ১৬৪ ধারায় তার জবানবন্দির রেকর্ড করেই মামলার তদন্ত শুরু করবে পুলিশ।

বাতেন বলেন, ‘ফরহাদ মজহারের ভাষ্যমতে তিনি গতকাল সোমবার ভোর ওষুধ কিনতে বেরিয়েছিলেন। তখন কয়েকজন লোক তাকে জোর করে গাড়িতে তোলে এবং তার চোখ মুখ বেঁধে ফেলে। এরপর ফরহাদ মজহারের ফোন থেকেই তার স্ত্রীকে ফোন করে মুক্তিপণ দাবি করা হয়।’ এ বিষয়ে সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্নের জবাব দেননি গোয়েন্দা কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে তদন্ত ছাড়া অন্য কোন কথা বলা সম্ভব নয়।’

ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার বলেন, ‘গতকাল সকালে আমাদের কাছে একটি অভিযোগ আসে কবি সাহিত্যিক কলামিস্ট ফরহাদ মজহারকে পাওয়া যাচ্ছে না। তখন আমরা তদন্ত করতে শুরু করি। গতকাল সোমবার রাত ১০/ সাড়ে ১০টার সময়ে তাকে যশোরের অভয়নগর থেকে উদ্ধার করা হয়।’

‘তার (ফরহাদ মজহার) স্ত্রী ফরিদা আক্তারের কাছ থেকে জানতে পারি যে তাকে অপহরণ করা হয়েছে। তার কাছে মুক্তিপণ চাওয়া হয়েছে। এরপর এ ঘটনায় গতকাল সোমবার দিবাগত রাতেই আদাবর থানায় একটি অপহরণ মামলা করা হয়।’

‘ওই মামলায় ফরহাদ মজহারকে ভিকটিম হিসেবে আদালতে পাঠানো হবে। এবং সেখানে তার ১৬৪ ধারায় আদালতে ওনার জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে। সেই জবাবনবন্দির ভিত্তিতেই মামলার তদন্ত শুরু হবে’-বলেন আবদুল বাতেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার, জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান ও অতিরিক্ত উপ কমিশনার ইউসুফ আলী এবং ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পশ্চিম বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার মোহাম্মদ রাসেল।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents