৫:৫১ অপরাহ্ণ - সোমবার, ১৯ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / চিকুনগুনিয়ার প্রাদুর্ভাব কমে আসলেও সামনে মশাবাহিত আরেক রোগ ডেঙ্গু নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে : মেয়র খোকন

চিকুনগুনিয়ার প্রাদুর্ভাব কমে আসলেও সামনে মশাবাহিত আরেক রোগ ডেঙ্গু নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে : মেয়র খোকন

ঢাকা, ০৩ জুলাই, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চিকুনগুনিয়া নিয়ে এক সভায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, মশাবাহিত রোগ চিকুনগুনিয়া নিয়ে এবার বেশ ভুগেছে রাজধানীবাসী। রোগটির প্রাদুর্ভাব কমে আসলেও সামনে মশাবাহিত আরেক রোগ ডেঙ্গু নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় ও হাসপাতালের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় বলা হয়, সামনে আসছে ডেঙ্গুর সিজন। বর্ষার মৌসুমে সাধারণত ডেঙ্গু বেশি হয়ে থাকে। সেজন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

এ কারণে মশার সোর্সকে ধ্বংস করার উপর জোর দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, মশার সোর্সকে যদি ধ্বংস করা যায় তাহলে এই রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এডিস মশা থেকে গত কয়েক বছর ধরে ডেঙ্গু রোগ ছড়ালেও এবার ছড়িয়েছে চিকুনগুনিয়া। এই রোগে মৃত্যু না হলেও তীব্র ব্যাথার কারণে রোগীর ভীষণ কষ্ট হয়। আবার কোনো ওষুধ না থাকায় সপ্তাহখানেক তীব্র ব্যাথা সহ্য করতে হয় ভুক্তভোগীদের।

মশা নিধনে সিটি করপোরেশন উদ্যোগী হয়েছে জানিয়ে এ বিষয়ে জনগণের সচেতনতাও জরুরি বলে মন্তব্য করেন মেয়র খোকন। তিনি বলেন, ‘বাসাবাড়িতে স্বচ্ছ পানিতে এডিস মশা হয়। এই মশা থেকেই চিকুনগুনিয়া রোগ ছড়ায়। এজন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে যেন পানি জমে থাকতে না পারে। বাসাবাড়ি যেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।’

সিটির বিভিন্ন জায়গায় মশা নিধন কর্মসূচি জোরদার করা হচ্ছে জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘আমরা মশা নিধনের জন্য বিশেষ কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। যাতে এই শহরে মশা না থাকে। পর্যায়ক্রমে আমরা চিকুনগুনিয়াকে পুরো দেশ থেকে বিদায় করতে পারবো বলে আশা করছি।’

চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে আসবে বলেও জানান সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, ‘মে-এপ্রিল মাসে যেভাবে চিকুনগুনিয়ার প্রাদুর্ভাব হয়েছে সেটি এখন নিম্নগামী।’

সভায় কিছু তথ্য উপস্থান করা হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের  পক্ষ থেকে। জানানো হয়, চার হাজার ৭৭৫জন মানুষের পরীক্ষা করা হয়েছে। এরমধ্যে চিকুনগুনিয়া ধরা পড়েছে ৩৫৭ জনের। মে মাসের প্রথম দিকে চিকুনগুনিয়ার প্রাদুর্ভাব বেশি ছিল। এটি এপ্রিলেও একইভাবে ছিল। জুন মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের পর থেকে চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমতে থাকে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘সবাইকেই এই রোগ প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে।’ ‘আমরা জঙ্গি নিধনে সফল হয়েছি। কিন্তু দেখছি মশা নিধন করতে পারছি না’- মন্ত্রীর এই বক্তব্যে সবাই হাসিতে ফেটে পড়েন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents