৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা না থাকলে তো বিনেয়োগ কম হবেই : আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী

রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা না থাকলে তো বিনেয়োগ কম হবেই : আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী

ঢাকা, ১৭ জুন, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ শনিবার রাজধানীর গুলশানের লেকশোর হোটেলে আয়োজিত এক বাজেট সংলাপে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, মানবসম্পদ উন্নয়নের চেয়ে মেগা প্রজেক্টের মতো দৃশ্যমান ‍উন্নয়নের দিকে সরকারের নজর বেশি। তিনি বলেছেন, স্বৈরাচারী সরকারেরই কেবল এ ধরনের প্রবণতা থাকে।

আমীর খসরু বলেন, পদ্মা সেতু হচ্ছে জনগণের করের টাকা দিয়ে। অথচ শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে তেমন বিনিয়োগ নেই। আমি মনে করি, মানবসম্পদ উন্নয়ন করতে হবে। মানব সম্পদ উন্নয়নে আমরা এখন বিশ্বে ১৩৯তম। আমদের শিক্ষা ও স্বাস্থ খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে।

বিভিন্ন ‍উন্নয়নে খরচের সমালোচনা করে আমীর খসরু বলেন, পদ্মা সেতুতে আট হাজার কোটি টাকা থেকে ২৮ হাজার কোটি টাকা হয়ে যায়। প্রতি কিলোমিটার রাস্তা বানাতে ৫৪ কোটি টাকা খরচ হয়, যা ইউরোপে ২৮ কোটি টাকা হয়। চীনে হয় ১২ থেকে ১৩ কোটি টাকায়। এমনিতেই বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বেড়েছে, তার ‍ওপর আবার ১৫ শতাংশ ভ্যাট বসানো হচ্ছে। গরিবের ও বড়লোকের সবার জন্যই ১৫ শতাংশ ভ্যাট হচ্ছে।

দেশে ৪০ শতাংশ শিক্ষিত বেকার রয়েছে, সেদিকে সরকারের নজর নেই অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, বেসরকারি বিনিয়োগ কম হচ্ছে। এখানে একটি মনস্তাত্ত্বিক ব্যাপার আছে। রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা না থাকলে তো বিনেয়োগ কম হবেই।’

বিএনপির নেতার এই বক্তব্যে দ্বিমত করেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এম মান্নান। তিনি আমীর খসরুর প্রতি বলেন, ‘ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রচুর বেসরকারি বিনিয়োগ হচ্ছে। আপনাকে আমি হেলিকপ্টারে নিয়ে যাব। সেগুলো দেখবেন। এখন আর কুঁড়ে ঘর নেই।’

মেগা প্রজেক্টের বিষয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী প্রজন্মের জন্য রুপপুর পারমাণবিক বিদুৎ প্রকল্প, বঙ্গবন্ধু স্যটেলাইট, চার লেন সড়ক। এগুলোর সুবিধা পাওয়া যাবে ভবিস্যতে।

জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও প্রকল্প বাস্তবায়নে অধিক খরচ নিয়ে আমীর খসরুর বক্তব্যের জবাব দেন পরিকল্পনামন্ত্রী মোস্তফা কামাল। তিনি বিএনপির নেতার উদ্দেশে বলেন, ‘আপনি যেটাকে ৭ শতাংশ বলেছেন, সেটা ছিল ৬.৬৭ শতাংশ। এর আগের ২০০৪-০৫ অর্থবছরে ছিল ৬.৪৮ শতাংশ। ২০০১-এ ছিল ৪.৭৫ শতাংশ। আর উন্নয়নে খরচ বৃদ্ধির কথা বলছেন। আমাদের দেশে জমির যে দাম তা অন্য দেশে নেই। আপনারা জ্বালাও-পোড়াও করবেন, আর ব্যবসায়ী পরিবেশ ঠিক থাকবে সেটা কীভাবে বলেন!’

মানবসম্পদ উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আগামী পাঁচ বছরে প্রচুর কর্মসংস্থান হবে। মানবসম্পদ ‍উন্নয়ন হয়েছে বলে মালয়েশিয়ায় আমাদের ৬২ হাজার ম্যানেজার কাজ করছে। এটা মালয়েশিয়া সরকারের তথ্য। তাহলে কীভাবে আমরা বলব আমাদের মানবসম্পদ উন্নয়ন হয়নি।

আলোচনায় আরো অংশ নেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. আকবর আলি খান, উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, সিপিডির চেয়ারম্যান রেহমান সোবহান, বিশেষ ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য্য প্রমুখ।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents