প্রস্তাবিত এই বাজেটকেই বর্তমান সরকারের আমলে শেষ পূর্ণাঙ্গ বাজেট বলছেন অর্থমন্ত্রী। বলেন, এরপর সরকার আরও একটি বাজেট দিলেও নির্বাচনের আগের বাজেট বলে বিশেষ কোনো দিক নির্দেশনা থাকবে না।

এর আগে সকালে জাতীয় সংসদে মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকা। এটিই দেশের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ বাজেট।

নতুন অর্থবছরের বাজেটের অর্থ সংগ্রহের মূল উৎস ধরা হয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) নিয়ন্ত্রিত কর। এ খাত থেকে অর্থ আসবে ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৯০ কোটি টাকা, যা বাজেট আকারের ৬২ শতাংশ। বাকি অর্থ আসবে অভ্যন্তরীণ ঋণ, বৈদেশিক ঋণ, বৈদেশিক অনুদান, এনবিআর বহির্ভূত কর এবং কর ব্যতীত প্রাপ্তি থেকে।

এর মধ্যে অভ্যন্তরীণ ঋণের মাধ্যমে আসবে ১৫ দশমিক ১ শতাংশ, বৈদেশিক ঋণ থেকে আসবে ১১ দশমিক ৬০ শতাংশ, বৈদেশিক অনুদান ১ দশমিক ৪০ শতাংশ, এনবিআর বহির্ভূত কর ২ দশমিক ১০ শতাংশ এবং কর ব্যতীত প্রাপ্তি ৭ দশমিক ৮০ শতাংশ।