অভিযোগ অস্বীকার করলেও এই দুই নারীর বিরুদ্ধে কিম জং ন্যামকে হত্যার অভিযোগ প্রমানিত হলে তাদের মৃত্যুদ- হতে পারে।
অভিযুক্তরা হত্যাকা-ের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে বলছে, তারা মনে করেছিল তারা একটি টিভি রিয়েলিটি শোতে অংশ নিয়েছিলেন।
এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার অভিযোগ, ফেব্রুয়ারি মাসে কিম হত্যাকা-ের নেপথ্যে উত্তর কোরিয়ার হাত রয়েছে, তবে উত্তর কোরিয়া এ অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে।
অভিযুক্ত ইন্দোনেশিয়ান নারী সিথি আয়শা (২৫) ও ভিয়েতনামের ডোন থি হুয়াং (২৮) কে আজ আদালতে বিচার পূর্ব শুনানিতে হাজির করা হয়।
তাদের আইনজীবী আদালতে বলেন, সরকারী কৌঁসুলি হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার প্রয়োজনীয় কোন প্রমাণ হাজির করতে পারে নি।
সিথি আয়শার প্রধান আইনজীবী গোই সু সিং আদালতে বলেন, ন্যায় বিচারের স্বার্থে বাদি পক্ষকে অবশ্যই বিবাদী পক্ষের নিকট আইনগত সকল ডকুমেন্ট সরবরাহ করা উচিৎ।
এর প্রেক্ষিতে ডেপুটি পাবলিক প্রসিকিউটর মোহাম্মদ ইসকান্দর আহমদ আদালতকে বলেন, বিচার কাজ শুরুর আগে বিবাদি পক্ষকে আইনগতভাবে প্রাপ্য সকল ডকুসেন্ট প্রদান করা হবে।
মালয়েশিয়ান পুলিশ অভিযোগ করে, নির্বাসিত কিমের মালয়েশিয়া থেকে ম্যাকাউতে যাওয়ার সময়ে বিমানবন্দরে অভিযুক্ত দুইজন ¯œায়ু অবশ করার বিশেষ এক ধরনের পাউডার কিমের মুখমন্ডলে দিয়ে তাকে হত্যা করে।
পুলিশ এ হত্যা পরিকল্পনার সাথে জড়িত সন্দেহে উত্তর কোরিয়ার চার নাগরিককেও খুঁজছে, যারা হত্যাকা-ের পরপরই উত্তর কোরিয়া পালিয়ে যায়।
এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মালয়েশিয়া ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যকার ক’টনৈতিক সর্ম্পকের চরম অবনতি ঘটে।