সংগঠনের প্রয়াত সদস্যদের সন্তানদের বৃত্তি দিতে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি। এবার ১৭ জন প্রয়াত সদস্যের সন্তানকে বৃত্তি দেয়া হয়। তারা প্রত্যেকে এক বছরের জন্য মাসে ২ হাজার করে ২৪ হাজার টাকা শিক্ষাবৃত্তি পায়।

তোফায়েল বলেন, গত নির্বাচনের আগে পাঁচটা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জিতেছিল বিএনপি। পরে নির্বাচনী সরকারে পাঁচটা মন্ত্রিত্ব নিতে তাদের ডাকার পরও তারা নেয়নি তা। এটা না নেয়াটা তাদের ভুল হয়েছে।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন দাবি করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এ জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে গণভবনে ডেকেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি যাননি, নির্বাচনও করেননি।’

তোফায়েল বলেন, আগামী নির্বাচনের সময় অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের ভূমিকা পালন করবে এই সরকার। গত নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিএনপি ভুল করেছে। এবার তারা সেই ভুল করবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি। প্রয়াত সদস্যদের সন্তানদের বৃত্তি দেয়ার উদ্যোগের প্রশংসা করে বাণিজ্যমন্ত্রী ডিআরইউকে অভিনন্দন জানান।

ডিআরইউর সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিলবোর্ড অ্যাডভার্টাইজিং ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

সাধারণ সম্পাদক মুরসালীন নোমানীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন, অর্থ সম্পাদক মানিক মুনতাসীর, প্রয়াত সদস্য আরিফ রহমানের স্ত্রী অহনা আক্তার ও ওবায়দুল গণি চন্দনের স্ত্রী রুবিনা।