শুধু ১০ হাজার ভিউ নয় একটি চ্যানেল এই সীমায় পৌঁছানোর পর প্রতিষ্ঠানের কোনো নীতিমালা লঙ্ঘন করে কিনা তা যাচাই করে দেখবে ইউটিউব। গুগল কর্তৃপক্ষ বলছে, আপত্তিকর ও পাইরেটেড ভিডিও প্রদর্শন করে অর্থ আয়ের সুবিধা বন্ধ করতে এ উদ্যোগ নিয়েছে তারা।

বিজ্ঞাপন দেখানোর নতুন সিদ্ধান্ত সম্পর্কে পণ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট এরিয়েল বারডিন বলেন, ‘নতুন মান নির্ধারণ করার ফলে কোনো চ্যানেলের বৈধতা দেওয়ার বিষয়ে আমাদের কাছে যথেষ্ট তথ্য থাকবে। কমিউনিটি গাইডলাইন বা বিজ্ঞাপন নীতিমালা মানা হচ্ছে কি না, সে বিষয়টিও নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এতদিন ইউটিউবে চ্যানেল খুলে এক ভিডিওর নামে অন্য ভিডিও দিয়ে দর্শকদের ধোঁকা দেওয়া হতো এবং ‘ভিউ’ বাড়ানোর চেষ্টা হিসেবে অনেক চ্যানেলেই আপত্তিকর কনটেন্ট দেখাত। এ ছাড়াও অনেক সময় ভিডিওর থাম্বনেইলে আকর্ষণীয় বিষয় দেখিয়ে ভেতরে অন্য বিরক্তিকর ভিডিও প্রদর্শন করা হতো। এতে দর্শক এবং বিজ্ঞাপনদাতা উভয়েই বিরক্ত হতেন।

সম্প্রতি আপত্তিকর কনটেন্ট বা ভিডিওর জন্য গুগলের ইউটিউবে বিজ্ঞাপন বয়কট করার ঘোষণা দিয়েছে বিশ্বের নামীদামী বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। আর এরই প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটি এমন পদক্ষেপ নিল। সূত্র: বিবিসি