৮:৩২ পূর্বাহ্ণ - রবিবার, ১৮ আগস্ট , ২০১৯
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / বাজারে আসার আগেই বিতর্কের মুখে স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি এস ৮

বাজারে আসার আগেই বিতর্কের মুখে স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি এস ৮

টেকনোলজী ডেস্ক, ০২ এপ্রিল, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): সম্প্রতি অবমুক্ত করা হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়ের সর্বশেষ সংস্করণ গ্যালাক্সি এস ৮ এবং ৮ প্লাস। ফোন দুইটি ২১ এপ্রিল থেকে বাজারে পাওয়া যাবে। কিন্তু বাজারে আসার আগেই বিতর্কের মুখে স্যামসং গ্যালাক্সি এস ৮ তার নতুন ফিচার।

স্যামসাংযের নতুন ফোনে যেসব ফিচার রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হল অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সিকিউরিটি। এই দুটি মডেলেই মিলবে আইরিশ সিকিউরিটি (চোখের মণি স্ক্যান), ফিঙ্গার স্ক্যান, পিন, প্যাটার্ন এবং ফেস রেকগনাইজেশন (মুখ স্ক্যান)। আইরিশ সিকিউরিটি স্যামাংয়ের আগে মডেলে দেখা গেলেও ফেস রেকগনাইজেশন একেবারে নতুন। তাই এ নিয়ে উৎসাহ কম নেই মোবাইল প্রেমীদের মনে।

তবে, নিরাপত্তার ক্ষেত্রে স্যামসাংয়ের ‘ফেস-সিকিউরিটি’ ততটা নির্ভরশীল নয় বলে মনে করছে স্প্যানিশ ব্লগার মার্সিয়ানোফোন। স্যামসাংয়ের ফেস সিকিউরিটি বিষয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করে তারা। ইউটিউবে সেই ভিডিও পোস্ট করে তার দাবি করেছে. অন্য ফোন থেকে তোলা সাধারণ একটি ছবিকে গ্যালাক্সি এস ৮ মডেলের সামনে রাখলেই নাকি খুলে যাচ্ছে ওই ফোনের লক। কিন্তু স্যামসাংয়ের ফিচারের তথ্য অনুযায়ী, গ্যালাক্সি এস ৮ ফোনের সেলফির মুডে তোলা মুখকে স্ক্যান করলে, তবেই খুলবে ওই ফোনের লক।

এই ভিডিও প্রকাশ হতেই রীতিমতো ভাইরাল হয়ে ওঠে। মাত্র এক দিনেই এক লাখের বেশি মানুষ ভিডিওটি দেখেছেন।

তবে, স্যামসংয়ের তরফে জানানো হয়েছে, ফেস রেকগনাইজেন শুধু মাত্র ফোন আনলক করার একটি ফিচার মাত্র, বায়োমেট্রিক ফিচার হিসাবে আইরিশ এবং ফিঙ্গার স্ক্যানই সর্বোচ্চ নিরাপত্তার গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

সকল ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে : রাষ্ট্রপতি

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ দেশের শান্তি ও অগ্রগতি …

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents