২:৪৫ পূর্বাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / রাজনীতি / আওয়ামী লীগ / কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে আ.লীগের পরাজয়ের পেছনে দলের অনৈক্য দায়ী : ওবায়দুল কাদের

কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে আ.লীগের পরাজয়ের পেছনে দলের অনৈক্য দায়ী : ওবায়দুল কাদের

টঙ্গী (গাজীপুর), ৩১ মার্চ, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ শুক্রবার দুপুরে গাজীপুরের টঙ্গীর গাজীপুরা বাসস্ট্যান্ডে ফ্লাইওভারের নির্মাণকাজের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পরাজয়ের পেছনে দলের অনৈক্য দায়ী।তিনি বলেন, ‘কুমিল্লায় দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারিনি। কিন্তু নারায়ণগঞ্জে ঐক্যবদ্ধ রাখা সম্ভব হয়েছিল।’

বৃহস্পতিবারের ভোটে কুমিল্লায় ১১ হাজার ভোটে বিএনপির কাছে হেরে যায় আওয়ামী লীগ। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আঞ্জুম সুলতানা সীমাকে প্রার্থী করার পর থেকেই তার বাবা আফজল খানের সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের পুরনো দ্বন্দ্বের বিষয়টি আলোচনায় আসে। এই দ্বন্দ্বের কারণে এর আগেও একাধিকবার আওয়ামী লীগ হেরেছে কুমিল্লায়। তবে ওবায়দুল কাদের আত্মবিশ্বাসী ছিলেন, বলেছিলেন নারায়ণগঞ্জে যেভাবে শামীম ওসমান ও সেলিনা হায়াৎ আইভীর দ্বন্দ্ব মিটেছে, একইভাবে কুমিল্লায়ও আফজল-বাহারের দ্বন্দ্ব মিটবে।

ভোটের আগে দুই নেতার দ্বন্দ্ব মেটার দাবি করা হলেও সীমার হারের পর আফজল খান এই ফলাফলের জন্য দলের ভেতরের ‘বেইমান’দেরকে দায়ী করেছেন। বাহার অবশ্য দাবি করেছেন, তিনি সীমার বিরোধিতা করেননি। আর তার প্রভাবিত এলাকায় নৌকা জিতলেও হেরেছে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের প্রভাবিত এলাকায়। এ নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর কোনো বক্তব্য অবশ্য এখনও পাওয়া যায়নি।

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর কুমিল্লায় আওয়ামী লীগ ভোটে জিতেছে দুইবার। ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে এবং ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার জিতেন। তবে ২০১২ সালে সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে আওয়ামী লীগ হারে বড় ব্যবধানে, প্রায় ৩০ হাজার ভোটে। ওই নির্বাচনের তুলনায় বিএনপির ভোট তিন হাজার বাড়লেও এবার বেড়েছে ২১ হাজার।

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কুমিল্লা যখন পৌরসভা ছিল, তখনো আমরা জিততে পারিনি। সিটি করপোরেশন হওয়ার পরও বিএনপি জিতেছে। তবে ভোটের ব্যবধান অনেক কমেছে।’

কুমিল্লায় হারলেও সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য ছিল নিরপেক্ষ, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করা। জয় পরাজয় বিষয় জনগণের। নারায়ণগঞ্জের মতো কুমিল্লা সিটি করপোরেশন প্রমাণ করেছে, শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করা সম্ভব।’

সুনামগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির কর্মী সমর্থকরা বহু চেষ্টা করেও আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে হারাতে পারেনি বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘সুনামগঞ্জে আমাদের প্রার্থী জয়া সেনগুপ্তা জয়ী হয়েছেন। স্বতন্ত্র যে প্রার্থী ছিলেন, তাঁকে বিএনপি সর্বাত্মক সহায়তা করে, শুধু মার্কাটা ধানের শীষ ছিল না।’

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লা খান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফারুক জলিল, বিআরটির প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী সানাউল হক প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents