১২:১০ পূর্বাহ্ণ - সোমবার, ১৯ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / রাজনীতি / আওয়ামী লীগ / বিভাগীয় শহরে একটি করে শিশু হাসপাতাল স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে : সংসদে নাসিম

বিভাগীয় শহরে একটি করে শিশু হাসপাতাল স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে : সংসদে নাসিম

Nasim3   09.11.15ঢাকা, ০৯ নভেম্বর ২০১৫ (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ সংসদে সরকারি দলের সদস্য মো. শফিকুল ইসলাম শিমুলের এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, প্রতিটি বিভাগীয় শহরে একটি করে শিশু হাসপাতাল স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।

সরকারি দলের সদস্য নুরন্নবী চৌধুরীর অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে বিদ্যমান সরকারি বিভিন্ন বিভাগের জন্য বিশেষায়িত (স্পেশালাইজড) ডাক্তারের সংখ্যা ৬ হাজার ৮৩৭টি। এই সংখ্যা দেশের চাহিদার তুলনায় যথেষ্ট নয়। বিশেষায়িত চিকিৎসক তৈরির জন্য সরকার ইতোমধ্যে ১৩টি নতুন মেডিকেল কলেজ স্থাপন করেছে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তৈরি করে দেশেই সাধারণ মানুষকে উন্নততর চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রতিটি বিভাগীয় শহরে পর্যায়ক্রমে একটি করে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের বিষয়ে সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে।

সরকারি দলের সদস্য মো. ইসরাফিল আলমের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে সরকারি হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ প্রফেসরসহ মোট ২৩ হাজার ৩৭১ জন চিকিৎসকের পদ রয়েছে। এ পদের বিপরীতে মোট ২১ হাজার ৮৪৮ জন কর্মরত আছেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের ১ হাজার ৫২৩টি পদ শূন্য রয়েছে।

স্বতন্ত্র সদস্য হাজী মো. সেলিমের এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, সরকারি খাতে ওষুধ ব্যবহারে শৃংখলা প্রতিষ্ঠাসহ অপচয় ও অপব্যবহার রোধে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মাসিক সমন্বয় সভায় ওই বিষয়টি নিয়ে নিয়মিত পর্যালোচনা করা হয় এবং অপচয় রোধ, অপব্যবহার নিয়ন্ত্রণ ও যথাযথ শৃংখলা তৈরি করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রতি হাসপাতালে একটি ব্যবস্থাপনা কমিটি রয়েছে। সংসদ সদস্য ওই কমিটির সভাপতি। ওই সভায় বিষয়টি পর্যালোচনার মাধ্যমে যথাযথ ব্যবহার গ্রহণ করা হয।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, হাসপাতালের ওষুধ যাতে বাইরে যেতে না পারে এবং সহজে চেনা যায় সে কারণে সরকারি ওষুধ লাল ও সবুজ রঙের মোড়কে আবৃত করা হয়েছে। এতে সরকারি ওষুধ বাইরে বিক্রি নিয়ন্ত্রিত হয়েছে।

তিনি বলেন, এছাড়া ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর কর্তৃক টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ওষুধের অপচয় ও অপব্যবহার রোধে মনিটরিং করা হয়।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents