৫:৪২ পূর্বাহ্ণ - শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / রাজনীতি / আওয়ামী লীগ / বাংলাদেশের স্বার্থ বজায় রেখে ভারতের সঙ্গে সামরিক-অসামরিক যে কোনো চুক্তি করা যায় : ওবায়দুল কাদের

বাংলাদেশের স্বার্থ বজায় রেখে ভারতের সঙ্গে সামরিক-অসামরিক যে কোনো চুক্তি করা যায় : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ২৪ মার্চ, ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ শুক্রবার সকালে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে সংগঠন কৃষক লীগ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশের স্বার্থ বজায় রেখে ভারতের সঙ্গে সামরিক-অসামরিক যে কোনো চুক্তি করা যায়।

তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের স্বার্থ ও সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দিয়ে দেশটির সঙ্গে বন্ধুত্ব চায় না ক্ষমতাসীন দল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ভারত জুজু তৈরি করা হয়েছিল মন্তব্য করে তিনি এও বলেছেন যে, গত কয়েক বছরে সন্দেহ-অবিশ্বাসের দেয়াল ভেঙে দেয়া হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ভারতকে নিয়ে সন্দেহ-অবিশ্বাসের দেয়াল তৈরি করা হয়েছিল। তিনি বলেন, ‘২১ বছর ভারত থেকে মুখ ফিরিয়ে, গেলরে গেলো ইন্ডিয়া হয়ে গেলো, এই স্লোগান তুলে জাতির অনেক ক্ষতি আপনারা করেছেন।…২১ বছর ধরে অবিশ্বাস আর সন্দেহের যে দেয়াল সৃষ্টি করেছেন, সে দেয়াল শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী ভেঙে দিয়েছেন। এটাই আজকে অনেকের সহ্য হচ্ছে না।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ভারত বিশাল দেশ, গণতান্ত্রিক দেশ, আমরা ভারতের সঙ্গে আমাদের স্বার্থ-সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দিয়ে আমরা বন্ধুত্ব চাই না। আমরা সমতার ভিত্তিতে বন্ধুত্ব চাই। কাজেই আমি বলতে চাই, চুক্তি হোক সামরিক-অসামরিক, সব চুক্তি হবে বাংলাদেশের স্বার্থে, সব চুক্তি হবে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব এবং জাতীয় স্বার্থকে সমুন্নত রেখে।’ তিনি বলেন, ‘জাতীয় স্বার্থে আমি যত বেশি চুক্তি করবো, আমি লাভবান হবো, আমার জনস্বার্থ উপকৃত হবে, আমি কী করে পিছিয়ে থাকবো। এই পুকমণ্ডুকতা আমার জাতিকে পিছিয়ে রাখবে। আমাদের ভবিষ্যতকে বিপন্ন করবে।’

বর্তমান সরকারের আমলে ভারতের সঙ্গে অমীমাংসিত যেসব সমস্যার সমাধান হয়েছে, সেগুলো নিয়েও কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘৪১ বছরে সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন হয়নি। ভারতের জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বাংলাদেশের জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৪১ বছরের অনিশ্চয়তার অবসান ঘটিয়ে সীমান্ত চুক্তির বাস্তবায়ন করেছেন। দুনিয়ার ইতিহাসে বিরল রেকর্ড স্থাপন করেছেন, যে এগুলোর শান্তিপূর্ণ সমাধান করা সম্ভব।…এত নিরাপদ শান্তিপূর্ণ ছিটমহল সমস্যার সমাধানে দুনিয়ার ইতিহাসে কোনো রেকর্ড নেই। …ছিটমহল বিনিময়েও আমরা লাভবান। আমরা ১০ হাজার একর জমি বাংলাদেশের মানচিত্রে আমরা যুক্ত করেছি।’

ভারতের সঙ্গে সমুদ্র সীমা মামলার রায় নিয়েও কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘ইন্ডিয়া একটি গণতান্ত্রিক দেশের মত সীমানা নিয়ে রায় শান্তিপূর্ণভাবে মেনে নিয়েছে। আদালতের রায় অনুযায়ী আমাদের যে পাওনা তা আমাদের দিতে হবে, ইন্ডিয়া তাতে কোনো হস্তক্ষেপ করেনি।’

প্রধানমন্ত্রীর এপ্রিলের ভারত সফরে তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি না হলেও অচিরেই তা হবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘গঙ্গাচুক্তি শেখ হাসিনা করেছেন, তিস্তা চুক্তিও ইনশাআল্লাহ শেখ হাসিনার হাত দিয়েই হবে। এখানে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার আছে, রাজ্য সরকার আছে …তাদের নিয়ম অনুযায়ী সবাই ঐক্যমতে পৌঁছে বাইরের সঙ্গে চুক্তি করতে হয়। সেটাতে হয়ত বেশি সময় নিয়েছে। তবে এবার না হলেও কিছুদিন পরে হলেও হবে। কিন্তু গঙ্গা চুক্তি যার হাতে হয়েছে, তিস্তা চুক্তিরও তিনি করবেন।’

তিস্তা চুক্তি না হলে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর অর্থহীন-বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্য নিয়েও কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘তিস্তা চুক্তিও হবে সময় মত। সব প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে, হয়ে যাবে। আপনাদের মন খারাপ জানি, মাথা খারাপ করবেন না, মাথা খারাপ হয়ে গেলে বেপরোয়া হয়ে যায়। একেক জন একেক কথা বলেন।’

সব দলের লেভেল প্লেংয়িং ফিল্ড না হলে নির্বাচন হবে না- মির্জা ফখরুলের এমন মন্তব্য নিয়েও কথা বলেন আওয়ামী লীগ নেতা। তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড ছিল, সেটা থাকলে কি আপত্তি আছে?’। তিনি বলেনম, ‘বিএনপি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলতে কী বোঝায় জানেন? তাদেরকে এমন একটা অবস্থা সৃষ্টি করতে হবে, যে তারাই সেখানে জিতবে। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড মানে তাদের নির্বাচনে জেতার নিশ্চয়তা দেয়া। এই নিশ্চয়তা তো আমরা দিতে পারবে না।’

সরকার জঙ্গিবাদকে ব্যবহার করছে, অতিরঞ্জিত করে দেখাচ্ছে-বিএনপির এমন সমালোচনারও জবাবে দেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘হলি আর্টিজানের ঘটনা, শোলাকিয়ার ঘটনা, আশকোনার ঘটনা, খিলগাঁওয়ের ঘটনা, মিরসরাইয়ের ঘটনা, সীতাকুণ্ডের ঘটনা, চান্দিনার ঘটনা-গত কয়েক মাসে যে ঘটনা হলো, এসব ঘটনা কি অতিরঞ্জিত? আসলে জঙ্গিবাদকে যারা পৃষ্ঠপোষকতা করে, জঙ্গিবাদকে মদদ দিয়ে যারা তাদের দুঃসাহসের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে, আজকে সরকারের সফল জঙ্গিবাদবিরোধী অভিযানে তাদের অন্তঃর্জালা করছে, তাদের গা জ্বালা করছে। এটাই হচ্ছে বাস্তবতা।’

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents