৯:৩১ পূর্বাহ্ণ - শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / আন্তর্জাতিক / বেশিরভাগ মার্কিনি ট্রাম্পের ‘মুসলিম নিষিদ্ধের আদেশ’ সমর্থন করেন

বেশিরভাগ মার্কিনি ট্রাম্পের ‘মুসলিম নিষিদ্ধের আদেশ’ সমর্থন করেন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): সাত মুসলিম দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা, অভিবাসন আইনে কড়াকাড়ি আরোপসহ যেসব নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, তা নিয়ে বিতর্ক থাকলেও, বেশিরভাগ মার্কিনি এসব আদেশ সমর্থন করছেন। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের একটি জনমত জরিপ বলছে এ তথ্য উঠে এসেছে।

৩০ ও ৩১ জানুয়ারি চালানো ওই জনমত জরিপে দেখা গেছে, ট্রাম্পের মুসলিম নিষিদ্ধকরণের প্রক্রিয়াকে সমর্থন দিয়েছেন ৪৯ শতাংশ মার্কিনি। এদের মধ্যে ৪১ শতাংশ একবাক্যে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের পক্ষে সমর্থন দিয়েছেন। আর জরিপে অংশগ্রহণ করা মাত্র ১০ শতাংশ মার্কিনি ট্রাম্পের এই আদেশের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। যদিও এই জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে রাজনৈতিক প্রভাব ফুটে উঠেছে। যেমন ৫৩ শতাংশ ডেমোক্রেট সমর্থক মার্কিনি এই আদেশের বিপক্ষে। অপরদিকে ৫১ শতাংশ রিপাবলিকান মার্কিনি শক্তভাবে ট্রাম্পের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।

দি রয়টার্স/ইপসোসের এই জরিপে দেখা যায়, ৩১ শতাংশ মার্কিনি মনে করেন ট্রাম্পের এই আদেশের ফলে তাদের যুক্তরাষ্ট্র ‘আরো নিরাপদ’ হবে। অপরদিকে ২৬ শতাংশ মনে করছেন এর ফলে ‘নিরাপত্তা হ্রাস’ পাবে।

৩৮ শতাংশ মনে করেন কিভাবে সন্ত্রাস দমন করতে হয়, এই ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র শিক্ষনীয় পদক্ষেপ নিল। অপরদিকে ৪১ শতাংশ মনে করেন দেশের জন্য এটি ‘জঘন্য উদাহরণ’ হয়ে থাকবে।

রয়টার্স/ইপসোস যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যে অনলাইনে এই জরিপ চালায়। এতে মত দিয়েছেন এক হাজার ২০১জন। এদের মধ্যে ৪৫৩ জন ডেমোক্রেট ও ৪৭৮ জন রিপাবলিকান সমর্থক।

যদিও জরিপে দেখা যায়, ট্রাম্পের আদেশে সমর্থন দেয়া মার্কিনিদের একটি বড় অংশ মনে করেন, মুসলিম শরণার্থীদের বাদ দিয়ে খ্রিষ্টানদের অগ্রাধিকার দেয়া ঠিক হবে না।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার এক নির্বাহী আদেশ জারির মাধ্যমে সিরিয়া, ইরাক, ইরান, লিবিয়া, সুদান, সোমালিয়া ও ইয়েমেন এই সাত দেশের শরণার্থীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন ট্রাম্প। ট্রাম্পের এসব আদেশের বিপক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া হয়েছে বিশ্বের অনেক দেশে। নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত জারি করতে পারেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা গ্রহণের পর এরকম বেশ কয়েকটি নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন।

অর্থ, স্বাস্থ্য ও অ্যাটর্নি জেনারেল হিসাবে যাদের মনোনয়ন দিয়েছেন ট্রাম্প, সেই সিদ্ধান্ত বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ডেমোক্রেট সিনেটররা। যদিও রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেটে এই নিয়োগ অনুমোদিত হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। ডেমোক্রেটদের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ট্রাম্প।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি পদে কলোরাডোর ফেডারেল আপিল কোর্টের বিচারক নিল গরসাচকে নিয়োগ দিয়েছেন ট্রাম্প। ট্রাম্প বলেন, গরসাচ দেশের সংবিধানকে সমুন্নত রাখবেন বলে তিনি বিশ্বাস করেন। প্রাথমিক ভাবে বিচারপতি পদের জন্য ২১জনকে মনোনীত করেছিলেন ট্রাম্প। পরে তাদের মধ্যে থেকে বেছে নেন গরসাচকে।

সিনেটের অনুমোদন পেলে গরসাচ প্রয়াত বিচারপতি অ্যান্টোনিন স্কালিয়ার স্থলাভিষিক্ত হবেন। একবছর আগে মারা যান বিচারপতি স্কালিয়া।

সিনেটে ডেমোক্রেট নেতা ডাক সুবার বলেন, গরসাচের বিষয়ে তার গুরুতর সংশয় রয়েছে।

তার এই নিয়োগের ঘোষণার পর যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের বাইরে বিক্ষোভ হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসাবে নিয়োগের পর বিচারপতিরা আজীবনের জন্য দায়িত্ব পালন করেন। রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকারের মধ্যে যেকোনো বিরোধে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিয়ে থাকে সুপ্রিম কোর্ট। মৃত্যুদণ্ডের বিষয়েও এই আদালতের রায়ই চূড়ান্ত।

ধারণা করা হচ্ছে, ভোটাধিকার, গর্ভপাত, রাষ্ট্রনীতিতে বর্ণবাদ বা যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন নীতির মতো বিষয়গুলো সুপ্রিম কোর্টে শুনানিতে আসবে, যে কারণে বিচারপতি নিয়োগ এতটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents