১০:২৬ পূর্বাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / ইসি গঠনে আইন প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না- তা জানতে হাইকোর্টের রুল

ইসি গঠনে আইন প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না- তা জানতে হাইকোর্টের রুল

ঢাকা, ৩০ জানুয়ারী ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ সোমবার নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে আইন প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না- সরকারের কাছে তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি করে বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আইন সচিব ও নির্বাচন কমিশনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

১১ জানুয়ারি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট আবেদনটি করছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. ইউনুছ আলী আকন্দ। তিনি বলেন, এ রিটের সঙ্গে সার্চ কমিটির বৈধতাও চ্যালেঞ্জ করা হয়েছিলো। কিন্তু আদালত এ বিষয়ে কোনো আদেশ দেননি।

আবেদনে বলা হয়,  ‘সংবিধানের ১১৮ অনুচ্ছেদে নির্বাচন কমিশন গঠন ও দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে সংবিধান ও আইনের অধীনে পরিচালিত হওয়ার কথা বলা থাকলেও এখন পর্যন্ত আইন করা হয়নি। একটি গুরুত্বপূর্ণ সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান সংবিধানের বিধানের বাইরে চলতে পারে না।’

আজকের শুনানিতে ইউনুছ নিজেই আবেদনের পক্ষে অংশ নেন। অন‌্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ‌্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

ইউনুছ আলী বলেন, সংবিধানের ১১৮ (১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং অনধিক চার জন নির্বাচন কমিশনারকে নিয়ে একটি নির্বাচন কমিশন থাকবে এবং এ বিষয়ে প্রণীত কোন আইনের বিধানাবলী সাপেক্ষে রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারকে নিয়োগ দেবেন। ১১৮ (৪) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশন দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে স্বাধীন থাকিবেন এবং কেবল এই সংবিধান ও আইনের অধীন হবেন।

১১৮ (৫) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, সংসদ কর্তৃক প্রণীত যে কোনো আইনের বিধানাবলী সাপেক্ষে নির্বাচন কমিশনারদের কাজের শর্ত রাষ্ট্রপতি আদেশের মাধ‌্যমে নির্ধারণ করে দেবেন। তবে শর্ত হল, সুপ্রিম কোর্টের একজন বিচারককে যে পদ্ধতি ও কারণে অপসারণ করা যায়, তেমন পদ্ধতি ও কারণ ছাড়া কোনো নির্বাচন কমিশনারকে অপসারণ করা যাবে না।

ফেব্রুয়ারির মাসের শুরুতে শেষ হচ্ছে কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের। এর আগেই নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের কাজ শুরু হয়েছে। ইতোমধ্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও বাকি কমিশনারদের নিয়োগের জন্য সার্চ কমিটি গঠন করেছেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ।

গত শনিবার প্রথম বৈঠক করেন সার্চ কমিটি। বৈঠকে রাষ্ট্রপতির কাছে সংলাপে অংশ নেয়া ৩১টি নিবন্ধিত দলের কাছ থেকে পাঁচটি করে নাম চায় কমিটি। আগামীকালের মধ্যেই এই নামের তালিকা দিতে বলা হয়েছে। নাম থেকে যাচাই বাছাই করে সার্চ কমিটি ১০ কার্যদিবসের মধ‌্যে নতুন নির্বাচন কমিশনের জন‌্য তাদের সুপারিশ রাষ্ট্রপতির কাছে জমা দেবে। সেখান থেকেই প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেবেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents