৪:২০ পূর্বাহ্ণ - মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / রিজভীকে নিত্যদিন ব্রিফিং করার প্রবণতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে : জাফরুল্লাহ চৌধুরী

রিজভীকে নিত্যদিন ব্রিফিং করার প্রবণতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে : জাফরুল্লাহ চৌধুরী

ঢাকা, ১৪ জানুয়ারী ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এক অনুষ্ঠানে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে নিত্যদিন ব্রিফিং করার প্রবণতা থেকে বের হয়ে আসার তাগিদ এসেছে বিএনপিপন্থিদের এক আলোচনায়। বিএনপির প্রতি সহানুভূতিশীল বুদ্ধিজীবী হিসেবে পরিচিত জাফরুল্লাহ চৌধুরী তার এক আত্মীয়ের বরাত দিয়ে প্রথমে এই পরামর্শ দিয়েছেন। পরে তিনি নিজের মুখেও একই ধরনের কথা বলেছে

দলীয় কার্যালয়ে বিএনপি নেতা রিজভীর সংবাদ সম্মেলন এক নিয়মিত চিত্র। প্রতি সপ্তাহেই তিনি কোনো না কোনো বিষয়ে কথা বলেন। কখনও কখনও একই দিন একাধিকবার ব্রিফিংও ডাকেন। এমনকি দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কোনো বিষয়ে কথা বলার পর একই বিষয়ে রিজভীর ব্রিফিং করার উদাহরণও আছে।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘রিজভী সাহেবকে প্রতিদিন প্রেস কনফারেন্স ডাকলে চলবে না।’ তিনি বলেন, ‘আজ এখানে আসার আগে একজনের সঙ্গে দেখা হয়েছিল। আমি এখানে আসছি জেনে তিনি বলেছেন, সেখানে রিজভী সাহেব থাকেন কি না, যদি তিনি থাকেন তাহলে তাকে বলবেন তিনি যেন প্রতিদিন সংবাদ ব্রিফিং না ডাকেন।’ জাফরুল্লাহ বলেন, ‘এটি আমার কথা না, আমার আত্মীয়ের কথা।’

পরে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র হত্যা করেছে। তারা বিরোধী দলের সভা-সমাবেশ করার অধিকার কেড়ে নিয়েছে। কিন্তু এটাকে অজুহাত দিয়ে রিজভী সাহেবকে বিবৃতি দেয়া বন্ধ করতে হবে।’

সরাসরি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত না থাকলেও নানা সময়ে বিএনপির রাজনীতির ভুলভ্রান্তি, আন্দোলন নিয়ে কথা বলে আলোচনায় এসেছেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। বিএনপিকে তিনি আন্দোলনে নামার পরামর্শও দিয়ে আসছেন। একই পরামর্শ তিনি দেন শনিবারের আলোচনাতেও। তিনি বলেন, ‘উনাকে (খালেদা) রাস্তায় নামতে হবে। কমিটিতে যারা আছেন সেসব নেতারা রাস্তায় বসে পড়ুন। মৌন মিছিল করুন। জনগণের কাছে যান।’

খালেদা জিয়াকে শিমুল বিশ্বাস ছাড়া অন্য একজন সহকারী নেয়ার পরামর্শ দেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘তাকে হতে হবে একজন মহিলা। তিনি প্রতিদিন সকালে তার (খালেদা জিয়া) বাসায় যাবেন। একসঙ্গে ব্রেকফাস্ট করবেন। পরে দরজার সামনে বসে নেতাকর্মীদের সঙ্গে চেয়ারপারসন কথা বলবেন। যারা কারাগারে আছে তাদের আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলবেন। দেখবেন কীভাবে জাগরণ সৃষ্টি হয়। বুঝতে হবে বিএনপির জন্য যেমন বেগম খালেদা জিয়াকে প্রয়োজন, তেমনি তারাও কর্মীদের প্রয়োজন।’

বিএনপিকে পাল্টানোর পরামর্শ দিয়ে এই বুদ্ধিজীবী বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ যা শুনতে চায় সেসব কথা বলুন। বিএনপির ধারণা তারা সব কিছু জানেন। তাদের অহমিকা ছাড়তে হবে। কথা বলার আগে অন্যান্য বিরোধী দলসহ ছোটখাটো রাজনৈতিক দল, বিশিষ্টজনদের সঙ্গে আলোচনা করে কথা বলার অভ্যাস করতে হবে। জিয়াউর রহমান সব সময় বিজ্ঞদের সঙ্গে কথা বলতেন। পরে নিজে বুঝে কথা বলতেন।’

জাফরুল্লাহ বলেন, ‘সব দায়-দায়িত্ব তাদের নেত্রী খালেদা জিয়ার ওপর অর্পণ করে তারা (বিএনপি নেতারা) খুব ভুল করছেন।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এমাজউদ্দিন আহমেদ, প্রমুখ এই আলোচনায় বক্তব্য রাখেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents