৮:৩৫ পূর্বাহ্ণ - সোমবার, ১৯ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / বিএনপি সংঘাতের রাজনীতিতে বিশ্বাস না করলেও সরকার তাদেরকে এই পথে ঠেলে দিচ্ছে : মির্জা ফখরুল

বিএনপি সংঘাতের রাজনীতিতে বিশ্বাস না করলেও সরকার তাদেরকে এই পথে ঠেলে দিচ্ছে : মির্জা ফখরুল

ঢাকা, ০৫ জানুয়ারী ২০১৭ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): দশম সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের ৫ জানুয়ারির তৃতীয় বর্ষপূর্তিতে বৃহস্পতিবার বিকালে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিএনপি সংঘাতের রাজনীতিতে বিশ্বাস না করলেও সরকার তাদেরকে এই পথে ঠেলে দিচ্ছে।

তিনি বলেছেন, তার দল ভোটের মাধ্যমে ক্ষমতা পরিবর্তনে বিশ্বাসী। কিন্তু সরকার তাদেরকে সহিংসতায় ঠেলে দিচ্ছে। বিএনপি এই দিনটিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষে পালন করে। এই দিন জেলায় জেলায় বিএনপি এবার কালোপতাকা মিছিলের কর্মসূচি দিলেও এবার রাজধানীতে কোনো কর্মর্সূচি রাখেনি দলটি। তবে ৭ জানুয়ারি রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের ডাক দিয়েছে তারা। এই সমাবেশের অনুমতি এখনও পায়নি বিএনপি। তবে সফল করার সব প্রস্তুতিই নিচ্ছে তারা। এই লক্ষ্যে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে যৌথসভা করে বিএনপি।

‘গণতন্ত্র হত্যা দিবসে’ জেলায় জেলায় বিএনপির কালোপতাকা মিছিলের কর্মসূচিতে বাধা এসেছে বেশ কিছু এলাকায়। কোথাও পুলিশের বাঁধায় পণ্ড হয়েছে কর্মসূচি। বরিশালে আবার আবার হামলা করেছে সরকারি দলের নেতা-কর্মীরা। এই হামলায় বিএনপি ৫০ জনেরও বেশি নেতা-কর্মী আহত হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজ সারাদেশে তাদের কর্মসূচি বানচাল করেছে পুলিশ ও সরকারি দলের বাহিনী। তিনি বলেন, আগে থেকেই আওয়ামী লীগ যে হুমকি দিয়ে রেখেছিল, তাই বাস্তবায়ন করেছে আজ।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, আজ নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে প্রজন্ম লীগ নামের একটি সংগঠনের কিছু লোকজন এসে বিএনপির ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে এবং একজন কর্মীকে মারধর করে। পুলিশের উপস্থিতিতে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। বিএনপির মহাসচিব বলেন, এসব আওয়ামী লীগের উস্কানি। তারা বিএনপিকে সংঘাতময় পরিস্থিতিতে ফেলতে চায়।

৭ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি এখনও পাওয়া যায়নি জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চাই।  সরকার হয়তো অনুমতি দেবে, হয়ত দেবে না। তবে আমরা আশা করি যথাসময়ে সমাবেশের অনুমতি পাওয়া যাবে।’

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ সরকারকে ‘অনৈতিক’ আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘বর্তমান সংসদের আইন প্রণয়নের নৈতিক অধিকার নেই, এই সরকারের দেশ পরিচালনার নৈতিক অধিকার নেই।’ তিনি বলেন, ‘৫ জানুয়ারির নির্বাচন ছিল গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক। তখন থেকে ফ্যাসিবাদী সরকার প্রবর্তিত হয়েছে। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন।’

গাইবান্দার সুন্দরগঞ্জের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যার পর প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যেরও সমালোচনা করেন ফলরুল। তিনি এই ঘটনার প্রকৃত তদন্ত দাবি করেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents