৯:৩২ পূর্বাহ্ণ - বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / রাষ্ট্রপতির সাথে বৈঠকের পর আমরা আশাবাদী হয়ে উঠেছি : মির্জা ফখরুল

রাষ্ট্রপতির সাথে বৈঠকের পর আমরা আশাবাদী হয়ে উঠেছি : মির্জা ফখরুল

ঢাকা, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): কমিশন গঠনের বিষয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার তোলা ১৩ দফা প্রস্তাবই রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে আবার তুলে ধরেছে দলটি। এক ঘণ্টার বৈঠক শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই বৈঠকের পর তারা আশাবাদী হয়ে উঠেছেন।

বিকাল সাড়ে চারটা থেকে বঙ্গভবনে এক ঘণ্টার বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় তিনি বৈঠকের বিষয়বস্তু তুলে ধরেন। তবে বিএনপির নেতা একটি ছাড়া কোনো প্রশ্ন নেননি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা আজকে মহামান্য রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠকে খুশি হয়েছি, আশাবাদী হয়ে উঠেছি। মহামান্য রাষ্ট্রপতি একজন আপাদমস্তক রাজনৈতিক নেতা। তিনি দীর্ঘকাল ধরে বাংলাদেশের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। এবং তিনি সর্বজনশ্রদ্ধেয় একজন মানুষ। আমরা আশা করি দেশের বর্তমান যে রাজনৈতিক সংকট, এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্য তার যে উদ্যোগ, তা নিঃসন্দেহে একটা ফলপ্রসু ভূমিকা পালন করবে। এবং এই আলোচনার প্রক্রিয়াটা অব্যাহত থাকবে ‘

বঙ্গভবনে ‘অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে ও উঞ্চ আমজে’ আলোচনা হয়েছে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘রাষ্ট্রপ্রতি তার স্বভাবসুলভ আন্তরিকতা দিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানিয়েছেন এবং অত্যন্ত হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে আলোচনা হয়েছে।’

মির্জা ফখরুল জানান, গত ১৮ নভেম্বর বিএনপির চেয়ারপারসন সংবাদ সম্মেলন করে যে ১৩ দফা প্রস্তাব তুলে ধরেছিলেন, সেটিরই একটি সারাংশ তারা তুলে ধরেছেন রাষ্ট্রপতির কাছে। নির্বাচন কমিশন গঠনের পদ্ধতিগত দিকগুলো নিয়ে কথা বলেছেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার প্রস্তাব নিয়ে তার সঙ্গে আলোচনার সময় চেয়েছিলাম। তিনি আজ আমাদের সময় দিয়েছেন।’

এই বৈঠকে খালেদা জিয়া ছাড়াও খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মাহবুবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম মিয়া,  গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। এই তালিকায় মির্জা আব্বাস ও তরিকুল ইসলামের নাম থাকলেও তারা বঙ্গভবন যাননি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘যে বিষয়টার ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়, সেটা হচ্ছে সকল রাজনৈতিক দলের মতৈক্যের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। এটাই মূল বিষয়। যেহেতু এখানে নির্বাচন কমিশন গঠন সম্পর্কে কোনো আইন তৈরি হয়নি তাই এখন আর বিকল্প কোনো পথ নেই। সকল রাজনৈতিক দলের মতৈক্যের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন গঠনের উদ্যোগ মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে নেয়া প্রয়োজন বলে আমরা মনে করি।’

মির্জা ফখরুল জানান, এই সংলাপে মূলত তিনটি প্রস্তাব তুলে ধরেছে বিএনপি। তিনি বলেন, ‘তিনটি প্রধান অংশ ছিল আমাদের প্রস্তাবের। একটি হলো বাছাই কমিটি গঠন এবং সেটা হতে হবে একেবারে নিরপেক্ষ এবং সবার কাছে গ্রহণযোগ্য বাছাই কমিটি। দ্বিতীয় নির্বাচন কমিশন গঠন, যেটাও সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য এবং মতামতের ভিত্তিতে হতে হবে। আর তৃতীয়, আরপিও সংশোধন এবং নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী করার প্রস্তাবগুলো।’

ফখরুল বলেন, ‘আমরা বলেছি, কী পদ্ধতিতে বাছাই কমিটির সদস্যদেরকে আমরা মনোনীত করবো। আমরা প্রস্তাব করেছি একজন আহ্বায়ক থাকবেন বাছাই কমিটির এবং চারজন সদস্য থাকবেন। একজন সাবেক প্রধান বিচারপতি, যিনি বিতর্কিত নন এবং সবার কাছে গ্রহণযোগ্য-তিনিই হবেন এর প্রধান।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা আশা করছি মহামান্য রাষ্ট্রপতি অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে তিনি তার পদ্ধতিগত বিষয়গুলো নির্ধারণ করবেন। এবং তিনি পুনরায় আবার রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করবেন।’

রাষ্ট্রপতি বিএনপিকে যা বলেছেন

এ বিষয়ে বঙ্গভবনের কোনো বিবৃতি পাওয়া যায়নি। তবে মির্জা ফখরুল তার সংবাদ সম্মেলনে কিছু বিষয় তুলে ধরেছেন। তিনি জানান, নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে প্রস্তাব দেয়া রাষ্ট্রপতি খালেদা জিয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশনেত্রী যে অত্যন্ত গঠনমূলকভাবে সুন্দর করে প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন, এটা ভবিষ্যতে নির্বাচন কমিশন গঠন এবং গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি (রাষ্ট্রপতি) মনে করেন। একই সঙ্গে তিনি অভিমত প্রকাশ করেন যে, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে আলোচনা ও সংলাপের কোনো বিকল্প নেই। সমস্যার সমাধানগুলো আলোচনার মাধ্যমেই হতে হবে বলে তিনি মনে করেন ‘

বিএনপি নেতা জানান, রাষ্ট্রপতি তাদেরকে আরও বলেছেন তাদের দেয়া পদ্ধতিগত বিষয়গুলো তিনি পরীক্ষা করবেন। তিনি বলেন, ‘তিনি (রাষ্ট্রপতি) এ কথাও বলেছেন যে, যেহেতু আমাকে একমাত্র আপনারাই এই বিষয়ে উদ্যোগ নেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন, সে জন্য আমিও প্রথম আপনাদের ডেকেছি এবং আপনাদের মতামতকেই প্রাথমিকভাবে বিবেচনা করার জন্য আমি নিয়েছি।’

ফখরুল বলেন, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি মনে করেন, সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য, নিরপেক্ষ, সাহসী ও যোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠন করা জাতির জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। সে কারণে সকল রাজনৈতিক দলের সমর্থন তিনিও আশা করেন। এবং সবাই এ বিষয়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে-এটাও তিনি আশা করেন।’ সৌজন্যে ঢাকাটাইমস

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বিকল্পের সন্ধানে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনে দেরি হচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

ঢাকা, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে কোটা …

স্যাটেলাইট মহাকাশে ঘোরায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে : মোহাম্মদ নাসিম

ফেনী, ১৩ মে ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণ হওয়ায় বিএনপির মাথাও ঘুরছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents