৭:১৫ পূর্বাহ্ণ - মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারে মুসলিম বিদ্বেষী সহিংসতা বাড়ছে

মিয়ানমারে মুসলিম বিদ্বেষী সহিংসতা বাড়ছে

mayanmar 03.11.15ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ০৩ নভেম্বর ২০৩৫ (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): মিয়ানমারে মুসলিমবিরোধী উত্তেজনা ক্রমেই বাড়ছে জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে । মুসলিমদের বাড়ি-ঘর, মসজিদে হামলা চালাচ্ছে উগ্রপন্থী বৌদ্ধরা। এর আগে ২০১২ ও ১৩ সালের যে দাঙ্গা হয়েছিল তার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে কিনা তা নিয়ে একটি প্রতিবেদন তৈরী করেছেন সাংবাদিক  প্রতিবেদক ইভান ওয়াটসন।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, দেশটির মিইকতিলায় সম্প্রতি বেশ কয়েকটি মসজিদে আক্রমণ ও লুটপাট চালিয়েছে উগ্রপন্থী বৌদ্ধদের একটি দল। সহিংসতার আশঙ্কায় সেখানকার অন্য মসজিদগুলো বন্ধ করে রেখেছে স্থানীয় প্রশাসন। উগ্রপন্থীদের দাবি, মুসলমানরা যেখানে বাস করে সেখানে মসজিদের সংখ্যা বেড়ে যায়। তাদের অধীনে ব্যবসা-বাণিজ্য বেড়ে যায়। তারা বৌদ্ধদের সুযোগ দিতে চায় না।

বৌদ্ধদের জাতীয়তাবাদী সংগঠন মা বা থা-এর প্রতিষ্ঠাতা ইউ উইরাথু মুসলিমদের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বর্জনের আহ্বান জানিয়েছেন। এ নিয়ে প্রচারপত্রও বিলি করেছেন তিনি। চলমান পরিস্থিতিতে সহিংসতা আগের মতো বাড়বে কি না— এমন প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় বৌদ্ধভিক্ষু ইউ ওই দৌকতাহ বলেন, ‘সমান-সমান সুযোগ রয়েছে।’

তবে বৌদ্ধ ভিক্ষুকদের অনেকে সাম্প্রতিক ধর্মীয় উত্তেজনা অস্বীকার করে বলেছেন, এটা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক। ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে তেমন কোনো উত্তেজনা নেই। কিন্তু রাজনৈতিক গ্রুপগুলো বিষয়টিকে উস্কে দিচ্ছে ।

আসছে ৮ই নভেম্বর দেশটিতে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় ও আঞ্চলিক পর্যায়ের নির্বাচন। মিয়ানমারের ২৫ বছরের ইতিহাসে এই নির্বাচনকে প্রথম স্বচ্ছ ও বস্তুনিষ্ঠ নির্বাচন বলে বিবেচনা করা হচ্ছে। কিন্তু আলোচিত এ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন কিংবা বিরোধী দল কোনো তালিকাতেই নেই মুসলিম প্রার্থীর নাম।

উইরাথুর এ প্রচারণা ও সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধদের মুসলিমবিরোধী মনোভাবের কারণে স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে অং সান সূচির গণতন্ত্রপন্থী দল এনএলডি (ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি) কোনো মুসলিম প্রার্থী দেয়নি বলে সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

গণতন্ত্রের জন্য শান্তিপূর্ণ সংগ্রামের স্বীকৃতি হিসেবে ১৯৯১ সালে শান্তিতে নোবেল পান সু চি। আর তাই রোহিঙ্গাদের প্রান্তিকীকরণ এবং জাতীয় নির্বাচন থেকে মুসলিম প্রার্থীদের বাদ দেওয়ার পর গনতন্ত্রপন্থী এ নেত্রীর নিরবতাকেই সবাই প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

এ প্রসঙ্গে নাম প্রকাশ না করে এনএলডির এক নেতা আল জাজিরাকে বলেন ‘আমি মনে করি মা বা থা আন্দোলন নিয়ে খানিকটা উদ্বেগে ছিলেন সু চি। আর সে কারণে তিনি দলকে মুসলিমমুক্ত করার চেষ্টা করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘মুসলিমরা এখানে নির্যাতিত হচ্ছে। আমি মনে করি, প্রতিটি দলে সবধরনের এবং সব ধর্মেরই লোকজন থাকা প্রয়োজন। মুসলিমবিরোধী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা ক্রমাগত শক্তিশালী হচ্ছে। মা বা থা নেতাদের সহায়তা না দিয়ে কর্তৃপক্ষের উচিত তাদের উপর ধরপাকড় চালানো।’

মা বা থা হল একটি অতিজাতীয়তাবাদী বৌদ্ধ আন্দোলন। ধর্ম ও বর্ণের সুরক্ষাবিষয়ক অ্যাসোসিয়েশন হিসেবে এটি পরিচিত হলেও সংগঠনটির নেতারা বিভিন্ন সময়ে সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গাদের আক্রমণ করে কথা বলে থাকেন।

দেশটির সেনা সমর্থিত ক্ষমতাসীন দল ইউনিয়ন সলিডারিটি এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (ইউএসডিপি) পক্ষ থেকেও কোনো মুসলিমকে প্রার্থী করা হয়নি।

এ ছাড়া দেশটির নির্বাচন কমিশন অনেক মুসলিম প্রার্থীর আবেদন বাতিল করেছে। প্রার্থীদের বাবা-মা মিয়ানমারের নাগরিক নয়— এমন অভিযোগে আবেদনগুলো বাতিল করা হয়।

এদিকে, নির্বাচনের আগে করা সর্বশেষ আদমশুমারিতে রোহিঙ্গা মুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়নি। এতে প্রায় ২০-৩০ লাখ রোহিঙ্গা পরিচয় সঙ্কটে ভুগছেন। এ ছাড়া নানা কৌশলে মুসলিমদের আদমশুমারি থেকে বাদ দেওয়া হয়।

উইরাথু জানিয়েছেন, সর্বশেষ আদমশুমারি অনুযায়ী মিয়ানমারে বসবাসরত মুসলিমদের হার ৪ শতাংশ।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যায় জড়িত ছিল ১৫ জনের একটি দল

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): তুরস্কের ইস্তাম্বুলের সৌদি দূতাবাসের ভেতরে সাংবাদিক জামাল …

মার্কিন ফার্স্টলেডি মেলানিয়ার বিমানে ধোঁয়া, জরুরি অবতরণ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): মার্কিন ফার্স্টলেডি মেলিনিয়া ট্রাম্পকে বহনকারী একটি বিমান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents