৮:৪৮ অপরাহ্ণ - বুধবার, ২১ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / শ্যামলীর শিশুমেলার ইজারাদার ১৪ বছরে এক টাকাও দেয়নি

শ্যামলীর শিশুমেলার ইজারাদার ১৪ বছরে এক টাকাও দেয়নি

sisumela-26-11-16ঢাকা, ২৬ নভেম্বর, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শ্যামলীর শিশুমেলার তিন বছরের ইজারামূল্য মাত্র এক লাখ ৪৫ হাজার টাকা! ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এই বিনোদন কেন্দ্রের যৎসামান্য ইজারামূল্যের ঘটনা বিস্ময়ের উদ্রেক করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের। আবার সেই টাকাও গত ১৪ বছর ধরে দেয়নি শিশুমেলার ইজারাদার। একরকম বিনা পয়সায় পার্কটি দখল করে রাখা হয়েছিল বলে জানান মেয়র।

উল্টো ইজারা বজায় রাখতে উচ্চ আদালতে মামলা করেছে ইজারাদার প্রতিষ্ঠান মের্সার্স ভায়া মিডিয়া বিজনেস সার্ভিসেস। শিশুমেলার ব্যবস্থাপক দাবি করছেন, তারা টাকা দিতে চেয়েছেন, কিন্তু সিটি করপোরেশন নেয়নি।

sisumela2-26-11-16চুক্তি নবায়ন না করায় শনিবার শিশুমেলা বন্ধ করে দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। মেয়র আনিসুল হকের উপস্থিতিতে  সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাজিদ আনোয়ার বিনোদনকেন্দ্রটির দুটি ফটক সিলগালা করে দেন। তবে শিগিগিরই এটি খুলে দেয়া হবে বলে জানান মেয়র।

এ ঘটনার পর শিশু মেলার ম্যানেজার নুরুল হায়দার মুকুল অভিযোগ করেন, তাদের না জানিয়ে পার্কটি সিলগালা করা হয়েছে। নিজের পক্ষে একরকম সাফাই গেয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করেছি টাকা পরিশোধ করতে। কিন্তু আমাদের টাকা নেয়নি সিটি করপোরেশন। তারা বলেছে, যেহেতু মামলা চলছে তাই তারা টাকা নিতে পারবে না।’

চুক্তি নবায়ন না করায় এর আগেও ইজারাদারকে উচ্ছেদের চেষ্টা করেছিল সিটি করপোরেশন। কিন্তু তারা আদালতের আশ্রয় নেয়ায় তা সম্ভব হয়নি।

sisumela3-26-11-16নুরুল হায়দার মুকুল, ‘২০১৩ সালে আমরা কোর্টে আবেদন করি। আমরা বলেছি ইজারার টাকা পরিশোধ করব। যেহেতু আমাদের এখানে অনেক বিনিয়োগ আছে তাই আমাদের টাকা পরিশোধ করে ব্যবসা করার সুযোগ দিন।’

২০০২ সাল থেকে ইজারার টাকা পরিশোধ না করার বিষয়ে জানতে চাইলে নুরুল হায়দার বলেন, ‘আমরা টাকা পরিশোধ করতে চেয়েছি কিন্তু কোর্টে মামলা থাকায় আমাদের টাকা নেয়নি সিটি করপোরেশন। তাই আমরা আর নবায়ন করতে পারিনি। আমাদের চুক্তি লিখিত, আমরা তিন বছর পর পর নবায়ন করব।’

নুরুল হায়দার মুকুল বলেন, তিন বছর পর পর ভিত্তিমূল্যের ১০ শতাংশ টাকা বাড়ার কথা। ২০০৫ সালে এ চুক্তি নবায়নের কথা থাকলেও কোর্টে মামলা থাকায় আমরা নবায়ন করতে পারিনি। পরে মেয়র পরিবর্তন হলে আর প্রশাসনিক জটিলতায় টাকা দিতে পারিনি।’

sisumela4-26-11-16সপ্তাহ খানেকের মধ্যে একটা সুরাহা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন শিশুমেলার এই ব্যবস্থাপক। তিনি বলেন, এখানে ১০০ কর্মচারী কাজ করেন, ভেতরে দোকান রয়েছে ১০টি। আমরা অনেক বিনিয়োগ করেছি এখানে। আশা রাখি সমঝোতার ভিত্তিতেই একটা ভালো সিদ্ধান্ত হবে।’ তারা সব টাকা পরিশোধ করবেন এবং পার্কটি যাতে তাদের দেয়া সেই আবেদন করবেন বলে জানান তিনি।

ঢাকা সিটি করপোরেশন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৯৮৫ সালে এক দশমিক ৪০ একর জমিতে গড়ে ওঠা এই শিশুপার্কটি পরিচালনার জন্য সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর করেছিল গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। পরে সিটি করপোরেশনের নিজ খরচে খেলার সরঞ্জাম স্থাপন করে এটি মের্সার্স ভায়া মিডিয়া বিজনেস সার্ভিসেস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে তিন বছরের জন্য ইজারা দেয় ২০০২ সালে।  তিন বছরের জন্য ইজারামূল্য ছিল এক লাখ ৪৫ হাজার ৭৫৬ টাকা ৫ পয়সা।  ইজারাদারের পক্ষে ম্যানেজিং ডিরেক্টর জি এম এম রহমান চুক্তিতে সই করেন। তিন বছর পর ইজারাচুক্তি আর নবায়ন করা হয়নি।

মেয়র আনিসুল হক বলেন, ‘শহরের মাঝখানে এই জায়গাটি আমি বলব ২০০২ সাল থেকে দখল করে রাখা হয়েছে, প্রতি তিন বছরে মাত্র এক লাখ ৪৫ হাজার টাকায়। তাও গত ১৪ বছরে একটি টাকাও সিটি করপোরেশনকে দেওয়া হয়নি। অবাক হয়ে যাই, কীভাবে এত দিন বিনে পয়সায় তারা রয়েছে!’

মেয়র আরো বলেন, ‘আমরা  মামলায় জয়ী হয়েছি। এটা  আর কাউকে দখল করতে দেওয়া হবে না।’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন থেকে জানানো হয়, ইজারা চুক্তি বাতিল করে শ্যামলী শিশুপার্কটি উচ্ছেদ কার্যক্রম গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু রিট পিটিশন থাকায় উচ্ছেদ করা যায়নি। মামলাটি শুনানির জন্য তালিকাভুক্ত আছে, কিন্তু কোনো নিষেধাজ্ঞা বা স্থগিতাদেশে নেই।

এদিকে হঠাৎ পার্কটি বন্ধ হওয়ায় দর্শনার্থীরা ঘুরতে এসে ফিরে যাচ্ছে। সাভার থেকে পরিবার নিয়ে শিশুমেলায় এসেছিলেন হামিদা আরা। তিনি বলেন, ‘ঘুরতে এসে যদি ফিরে যেতে হয় সেটা খুবই কষ্টকর। বাচ্চাদের মন খারাপ হয়ে গেছে।’

আর পার্কের দোকানদাররা পড়েছেন বিপদে। তারা বলছেন, তাদের তো কোনো দোষ নেই।

শিশুমেলা সিলগালা করার সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাঈদ আনোয়ারুল ইসলাম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ কুদরতুল্লাহ, প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম, আইন কর্মকর্তা এস এম মাসুদুল হক, মহাব্যবস্থাপক (পরিবহন) লে. কর্নেল এম এম সাবের সুলতান, অঞ্চল-৫ এর নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম অজিয়ার রহমান, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফোরকান হোসেন, নূরুল ইসলাম রতন, তারেকুজ্জামান রাজিব, আবুল হোসেন, মোবাশ্বের চৌধুরী, মফিজুর রহমান ও মহিলা কাউন্সিলর শামীমা রহমানসহ ডিএনসিসির কর্মকর্তারা। সৌজন্যে ঢাকাটাইমস

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents