৩:২৮ অপরাহ্ণ - বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০১৯
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / ইবির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জিয়াকে অস্বীকার করায় জিয়া পরিষদ ও ছাত্রদলের প্রতিবাদ

ইবির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জিয়াকে অস্বীকার করায় জিয়া পরিষদ ও ছাত্রদলের প্রতিবাদ

eb-bnp-24-11-16কুষ্টিয়া, ২৪ নভেম্বর, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে অস্বীকার করায় নিন্দা ও প্রতিবাদের ক্যাম্পাসে ঝড় উঠেছে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সংগঠন জিয়া পরিষদ ও শাখা ছাত্রদল তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শাখা ছাত্রদলের সভাপতি ওমর ফারুক ও দপ্তর সম্পাদক সাহেদ আহম্মেদ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তি দেন। এছাড়া জিয়াকে অস্বীকারের প্রতিবাদে শিক্ষক সংগঠন জিয়া পরিষদ পৃথক প্রতিবাদ জানিয়েছে।

জিয়াকে অস্বীকারের প্রতিবাদে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন ইবি জিয়া পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ড. তোজাম্মেল হোসেন ও প্রফেসর মোহাম্মদ সেলিম।

তারা বলেন, ‘জিয়া পরিষদের পক্ষ থেকে মনোনয়ন দিয়ে তাকে শিক্ষক সমিতির সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে। তার উচিৎ ছিল দলীয় প্রতিনিধিত্ব করা। অথচ তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতার নাম গত ২২ ও ২৪ নভেম্বর দুটি অনুষ্ঠানে অস্বীকার করে তার নাম উচ্চারণ করেননি।’

ছাত্রদলের বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেছে, ‘কেন্দ্রীয় জিয়া পরিষদের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব প্রফেসর ড. এমতাজ হোসেন দলীয় পরিচয়ে এবং বিএনপি-জামায়াতের ভোটে শিক্ষক সমিতির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। আমারা গভীর উদ্বেগ ও বিস্ময় প্রকাশ করছি যে, তিনি জিয়া পরিষদের নেতা হয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে স্মরণ করেননি। পরপর দুই দিন তিনি বক্তব্যে কৌশলে জিয়াকে অস্বীকার করেছেন। আমরা বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষকদেরকে সম্মানপূর্বক অনুরোধ করছি ভবিষ্যতে নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রে সর্তকতা অবলম্বন করতে, সরকারের এজেন্ট বা অন্য আদর্শে বিশ্বাসীরা আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হতে না পারে সে দিকে সজাগ থাকবেন।

বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রদল বেগম খালেদা জিয়া এবং মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে অনুরোধ করে বলে, ‘বিএনপির অন্যতম অঙ্গ সংগঠন কেন্দ্রীয় জিয়া পরিষদে সরকারের কোন এজেন্ট বা অন্য আদর্শের কেউ আছে কিনা তা তদন্তপূর্বক খুঁজে বের করতে। কারণ সরিষার মধ্যে ভুত থাকলে সেটা খুঁজে বের করতে হবে। আমরা আশা করছি, যে, ভবিষ্যতে এমন কোনো নেতা যেন নির্বাচিত না হয়- সেদিকে আমরা সকলেই অবশ্যই সচেতন হব।

এবিষয়ে জিয়া পরিষদের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. এমতাজ হোসেন বলেন, ওটা কোন রাজনৈতিক সংগঠন নয়। শিক্ষক সমিতির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমি বক্তব্য প্রদান করেছি। সৌজন্যে ঢাকাটাইমস

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

সকল ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে : রাষ্ট্রপতি

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ দেশের শান্তি ও অগ্রগতি …

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents