৫:২৬ অপরাহ্ণ - শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / এবার মেট্রো রেলের জন্য রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি

এবার মেট্রো রেলের জন্য রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি

mattro-rall-15-11-16ঢাকা, ১৫ নভেম্বর, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): ঘটনাটা আজকের। ঘড়িতে তখন সকাল সাড়ে ১০টা। বেগম রোকেয়া সরণির একাংশ কেটে ফেলা হচ্ছে। রাজধানী ঢাকার মিরপুর-১০ থেকে আগারগাঁও যাওয়ার লেনের একাংশে তাই বাঁশ-দড়ির বেড়া দেয়া হয়েছে। যান চলাচলের জায়গায় কমে যাওয়ায় তৈরি হচ্ছে যানজট। যাত্রীরা তাই অশেষ ভোগান্তির মধ্যে আছে। অনেকেই এ নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করলেন।

এই খোঁড়াখুঁড়ি অবশ্য শহর ঢাকাকে যানজট মুক্ত করার উদ্যোগেরই একটি অংশ। শহরে মেট্রোরেল এলে জটলা ছাড়াই চলতে পারবে নগরবাসী। তাই কেউ কেউ সাময়িক দুর্ভোগ মেনে নিতে রাজি। পরিবহন বিশেষজ্ঞরাও মনে করেন, যানজট কমাতে দারুণ কার্যকর এক গণপরিবহন মেট্রোরেল। তাদের পরামর্শ নিয়েই ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের এমআরটি-৬ রুট বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

mattro-rall3-15-11-16মিরপুরে রোকেয়া সরণি ঘুরে দেখা গেছে, সড়কের এক জায়গায় সাইনবোর্ড দেয়া হয়েছে। তাতে লেখা- ‘সাবধান, সাবধান, সাবধান, মেট্রোরেল নির্মাণের কাজ চলছে। ১৩২ কেভি পাওয়ার ক্যাবল স্থানান্তরের কাজ চলছে। সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিক দুঃখিত।’

সড়কের মাঝ বরাবর মেশিন দিয়ে সড়কের একাংশ কাটা হচ্ছে। কোথাও কোথাও বড় ক্রেনের সাহায্যে পিচ, ইট, বালি ও  মাটি তুলে বিশাল গর্ত করা হচ্ছে। এখানকার কর্মী রফিকুল আলম বললেন, ‘রাস্তার মাঝ দিয়ে বিদ্যুতের লাইন টানার কাজ করছি। তালতলা থেকে মিরপুর পর্যন্ত খোঁড়া হবে।’ তার মতো অনেক কর্মী আবার সড়কের যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের মতো দায়িত্ব পালন করছিলো।

এদিকে ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমআরটিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের পরিচালক মোফাজ্জেল হোসেন জানিয়েছেন, ২০১৯ সালের মধ্যে মেট্রোরেলের উত্তরা ডিপো থেকে আগারগাঁও অংশের কাজ হয়ে যাবে। অর্থাৎ বছর তিনেকের মধ্যেই মেট্রোরেলে চড়তে পারবেন ঢাকাবাসী।

মূল কাজ আগামী জুনে

জানা যায়, মেট্রোরেলের মূল কাজ শুরু হবে আগামী বছরের জুন মাসে। উত্তরা-পল্লবী-রোকেয়া সরণির পশ্চিম পাশ দিয়ে খামারবাড়ি হয়ে ফার্মগেট-হোটেল সোনারগাঁও-শাহবাগ-টিএসসি-দোয়েল চত্ত্বর-তোপখানা রোড হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক পর্যন্ত যাবে এই মেট্রোরেল। মেট্রোরেলের স্টেশন সংখ্যা মোট ১৬টি। সেগুলো হচ্ছে-উত্তরা উত্তর, উত্তরা সেন্টার, উত্তরা দক্ষিণ, পল্লবী, মিরপুর-১১, মিরপুর-১০, কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া, আগারগাঁও, বিজয় সরণি, ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, শাহবাগ, টিএসসি, প্রেসক্লাব এবং মতিঝিল। রুটের মোট দৈর্ঘ্য ২০ দশমিক ১ কিলোমিটার, রোলিং স্টক ২৪ সেট। প্রতি সেটে ৬টি করে কার থাকবে। ঘণ্টায় গতিবেগ ১০০ কিলোমিটার এবং ৬০ হাজার যাত্রী পরিবহনে সক্ষম। সৌজন্যে ঢাকাটাইমস

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents