৮:৩৩ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / অপরাধ / ঝালকাঠিতে এনটিভি-কালেরকন্ঠ প্রতিনিধির বিরুদ্ধে প্রতারনা ও আত্মসাতের এজাহারের তদন্ত সিআইডিতে

ঝালকাঠিতে এনটিভি-কালেরকন্ঠ প্রতিনিধির বিরুদ্ধে প্রতারনা ও আত্মসাতের এজাহারের তদন্ত সিআইডিতে

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি, ০৮ নভেম্বর, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): ঝালকাঠির দৈনিক কালেরকণ্ঠ-এনটিভির জেলা প্রতিনিধি কেএম সবুজের বিরুদ্ধে বিধবা মামী তানিয়া বেগম বাদি হয়ে ১২ লাখ ৪০ হাজার টাকা আত্মসাতের মামলার তদন্ত কার্যক্রম সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের (এমপি-৯৩) নির্দেশে নলছিটি থানার দন্ডবিধির ৪০৩/৪০৬/৪২০/৫০৬(২) ধারায় (এমপি-৯৩ মামলায়) মামলাটি এজাহার (নং- ১৮ তাং ৩০.০৮.২০১৬) হিসেবে রেকর্ড করেছে। এছাড়াও অসহায় মামী তানিয়া বেগম বাদী হয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৯৮ ধারায় দায়েরকৃত অপর মামলাটি (এমপি-৪৩৯) আসামী কেএম সবুজের বিরুদ্ধে সার্চ ওয়ারেন্ট জারি সহ চেক উদ্ধারের অপর মামলাটি নলছিটি থানার এসআই ফজলুর রহমানের কাছে তদন্তাধীন রয়েছে। অন্যদিকে ৮ নভেম্বর অর্থ আত্মসাতের নির্ধারিত মামলায় আসামী পক্ষ সময়ের আবেদন জানালে পরবর্তী তারিখ ধার্যকরা হয়েছে।
মামলার বাদী সূত্রে জানাগেছে, নলছিটি পৌর ভূমি অফিসে চাকুরীরত কুদ্দুছ হাওলাদার ২০১৩ সালের ৩১ জুলাই স্ত্রী ও ১মাস বয়সী কন্যা আয়েশাকে রেখে আকস্মিক মারা যান। এরপর মৃত স্বামীর ভাগ্নে আসামী কেএম সবুজের সহযোগীতায় স্বামীর সরকারী বেতন-ভাতার ১২লক্ষ ৪৪ হাজার টাকা টাকা উত্তোলন করেন। উক্ত টাকা নলছিটি সোনালী ব্যাংক শাখায় জমা রাখলে সবুজ মামাতো বোন  আয়শার নামে ফিক্সড ডিপোজিট ও তানিয়া বেগমের নামে মাসিক পেনশন স্কীম করে দেয়ার কথা বলে উক্ত একাউন্টের অনুকুলে ৪টি অলিখিত চেকের পাতায় স্বাক্ষর করিয়ে নেয়। একপর্যায়ে অসহায় মামীর অজান্তে তার স্বাক্ষর করিয়ে নেয়া চেকের পাতার ৩টির মাধ্যমে কেএম সবুজ জমাকৃত (১২ লক্ষ ৪৪ হাজার) পুরো টাকা উত্তোলন করেন।
বিষয়টি গোপন রাখতে সে ন্যাশনাল লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানিতে মামীর নামে ১ লক্ষ টাকার একটি জীবন বীমা পলিসি ও শিশুকন্যা আয়শার নামে পূবালী ব্যাংক নলছিটি শাখায় ২ লক্ষ টাকার ফিক্সড ডিপোজিট করে নিজেই নমিনি র্ভূক্ত থেকে বাকী টাকা হজম করে ফেলেন। এনিয়ে অসহায় মামী আসামী কেএম সবুজের বিরুদ্ধে নলছিটি উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরমেয়র ও থানার ওসির কাছে লিখিত অভিযোগ ও ধর্না দিলেও সকলেই সাংবাদিকতার ভয়ে সকলেই দায় এড়িয়ে যান। এক পর্যায়ে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ করলে তার নির্দেশে নলছিটি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঘটনার পক্ষ-বিপক্ষ সকলেকে নোটিশ করে ডেকে বিস্তারিত তদন্ত করলে কেএম সবুজ তার প্রতারনা ও আত্মসাতের বিষয়টি ধরা পরে যাওয়ার ভয়ে উক্ত তদন্ত কার্যক্রমেও অসহযোগীতা করলে বিধবা তানিয়া বেগম আদালতের আশ্রয় নেন বলে জানিয়েছে।
গত ৮নভেম্বর ধার্য তারিখে আদালতে উপস্থিত মামলার বাদী তানিয়া বেগম জানায়, দুই দিন পূর্বে সিআইডি অফিস থেকে তাকে মোবাইলে ফোন দিয়ে মামলা তদন্তের দায়িত্ব তাদেরকে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে। তবে নতুন তদন্ত কর্মকর্তা এখোন পর্যন্ত তার সাথে সাথে দেখা করেনি। তিনি অভিযোগ করেন আসামী কেএম সবুজ বিভিন্ন জনের কাছে মামলা শেষ হয়ে গেছে, শালিশী হয়েছে, উল্টো আমার কাছে ৫লাখ টাকা পাবে ও আমার চরিত্র নিয়েও আজেবাজে কথা বলে বেড়াচ্ছে। তবে ন্যায় বিচার হলে সত্যের জয় হবেই।
এব্যাপারে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মাইনুল জানায়, বিভাগীয় নিয়মানুযায়ী মামলাটি তদন্তের জন্য সিআইডির অধীনে নেয়া হয়েছে। এটা বিশেষ কোন বিষয় নয়, বিধি অনুযায়ী সিআইডি মামলাটি তদন্ত করবেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents