১:২৪ পূর্বাহ্ণ - শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / গাজীপুরের খবর

গাজীপুরের খবর

মুহাম্মদ আতিকুর রহমান আতিক-গাজীপুর, ০১ নভেম্বর, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম):

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের (জিসিসি) হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ গোলাম কিবরিয়াকে দুর্নীতির একটি মামলায় গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

১ নভেম্বর মঙ্গলবার সকালে দুদকের একটি দল গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কার্যালয় থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে জয়দেবপুর থানায় নিয়ে যায়। পরে তাঁকে গাজীপুর আদালতে পাঠানো হলে গাজীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিনা খানম শিল্পী তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। গ্রেফতারকৃত গোলাম কিবরিয়া (৪৬) পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার মোতাহার উদ্দিনের ছেলে।

দুদকের উপপরিচালক মোঃ সামছুল আলম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার সকালে তাঁরা গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে অভিযান চালিয়ে গোলাম কিবরিয়াকে গ্রেফতার করেন।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ত্রাণ ও দরিদ্র তহবিলের ৪৯ লাখ এক হাজার ৮৪৮ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গত ১৩ জুন দুদকের উপপরিচালক (বিশেষ অনুসন্ধান ও তদন্ত-১) মোঃ সামছুল আলম বাদী হয়ে সিটি কর্পোরেশনের সাময়িক বরখাস্ত হওয়া মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নানকে প্রধান আসামি করে জয়দেবপুর থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় সিটি কর্পোরেশনের তৎকালীন প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনকারী মোঃ গোলাম কিবরিয়াও এজাহারভুক্ত আসামি।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ২০১৩ সালের ১৮ আগস্ট থেকে ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময়কালে কর্পোরেশনের ত্রাণ ও দরিদ্র তহবিলে মোট এক কোটি তিন লাখ আট হাজার ১৩২ টাকা আয় দেখানো হয়। ত্রাণ ও দরিদ্র তহবিলের আয়গুলো কোনো ব্যাংক হিসাবে জমা না রেখে নিয়মবহির্ভূতভাবে ‘ক্যাশ ইন হ্যান্ড’ হিসেবে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ গোলাম কিবরিয়ার কাছে সংরক্ষিত রাখেন। এর মধ্যে ৯০ লাখ ৪৭ হাজার ৮৪৬ টাকা খরচ দেখানো হয়। এই খরচের টাকার মধ্য থেকে ৪৯ লাখ এক হাজার ৮৪৮ টাকা ক্ষমতার অপব্যবহার, প্রতারণা ও অপরাধমূলক বিশ্বাসভঙ্গের মাধ্যমে ভুয়া গ্রহীতা দেখিয়ে ৯৯৯টি ভাউচারের মাধ্যমে আত্মসাৎ করার প্রমাণ পায় দুদক।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের (জিসিসি) মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান এবং হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ গোলাম কিবরিয়া পরস্পর যোগসাজশে অনুদান এবং ব্যয় দেখিয়ে ওই পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। এ অপরাধে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১ ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়। এতে দুর্নীতি দমন কমিশনের অনুমোদন রয়েছে।

এর আগে কারাবন্দি এম এ মান্নানকেও একই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয় বলে দুদকের উপপরিচালক মোঃ সামছুল আলম জানান।

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা

gazipur-city-a-lig-01-11-16গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে গত এক বছর ৯ মাস পূর্বে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়।

২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডঃ আজমত উল্লাহ খানকে সভাপতি এবং মোঃ জাহাঙ্গীর আলমকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয়।

দীর্ঘদিন পর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা গত ১০ অক্টোবর ৭১ সদস্য বিশিষ্ট গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটির অনুমোদন দেন। একই সঙ্গে ২১ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদেরও অনুমোদন দেয়া হয়।

এদিকে, এডঃ আজমত উল্লাহ খানকে সভাপতি এবং জাহাঙ্গীর আলমকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণার পর দলীয় নেতা-কর্মীরা বেশ চাঙা হয়ে উঠেছে। এই কমিটির নেতাদের স্বাগত জানিয়ে আনন্দ প্রকাশ করেছে কর্মীরা।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, পূর্ণাঙ্গ কমিটির নেতারা হলেন, সভাপতি এডঃ আজমত উল্লাহ খান, সহ-সভাপতি কাজী আলিম উদ্দিনবুদ্দিন, এডঃ ওয়াজ উদ্দিন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ নয়ন, বেগম সামসুন্নাহার ভুঁইয়া, এডঃ আমজাদ হোসেন বাবুল, ওসমান আলী, রেজাউল করিম, আসাদুর রহমান কিরণ ও আফজাল হোসেন সরকার রিপন।

সাধারণ সম্পাদক এডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আতাউল্লাহ মন্ডল, মতিউর রহমান মতি, এস এম মোকসেদ আলম, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডঃ খালিদ হোসেন, কৃষি সমবায় বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোঃ খালেকুজ্জামান, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক হাজী রফিকুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক এডঃ মনির হোসেন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আক্তার হোসেন গাজীপুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবিএম নাসির উদ্দিন নাসির, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শেখ আক্কাস আলী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শহীদুল্লাহ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক হোসনে আরা সিদ্দিকী জুলি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মীর মোজাফফর হোসেন, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান তরুণ, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আশরাফুল আলম আসকর, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক বাছির উদ্দিন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এম. জাহিদ আল মামুন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসাদুল্লাহ সরকার, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক জাকির হোসেন খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন মহি, কাজী ইলিয়াস আহম্মদ ও মজিবুর রহমান, সহ-দফতর সম্পাদক  মাজহারুল ইসলাম, সহ-প্রচার সম্পাদক সালমা বেগম, কোষাধ্যক্ষ জয়নাল আবেদিন।

৩৪ জন নির্বাহী সদস্য হলেন, এডঃ আকম মোজাম্মেল হক, মেহের আফরোজ চুমকি, জাহিদ আহসান রাসেল, ডাঃ এমএ রশিদ, কাজী মোজাম্মেল হক, আব্দুল বারিক মিয়া, এডঃ শফিকুল ইসলাম বাবুল, আব্দুল হাদী শামীম, মোঃ ফজলুল হক, সিরাজুল ইসলাম এম এ, আলহাজ আব্দুর রশিদ, রজব আলী, রফিজ উদ্দিন, এডঃ হেলাল, কাজী আলী হোসেন মাস্টার, আজিজুর রহমান শিরিষ, এডঃ. শরবেশ আলী, হেদায়েত উল্লাহ, এডঃ আব্দুস সাত্তার, এডঃ আব্দুর রহমান, মহিউদ্দিন সুন্দর, আজহার উদ্দিন, ব্যারিস্টার সাজ্জাদ হোসেন, আনোয়ার হোসেন, গিয়াস উদ্দিন মোল্লা, এসএম শামীম, আব্দুল আলিম মোল্লা, ফজলুর রহমান, আসাদুজ্জামান তুলা, খোরশেদ আলম রানা, খলিলুর রহমান এমএ, আকরাম হোসেন সরকার, মোঃ আবুল কাসেম ও ফাইজুল আলম দিলীপ।

এছাড়া উপদেষ্টামণ্ডলীর ২১ জন সদস্য হলেন, এখলাস উদ্দিন, সফুর উদ্দিন খান, আবু সাইদ খান, প্রফেসর আব্দুল বারী, কলিম উদ্দিন চেয়ারম্যান, শফিকুল আলম, মমতাজ উদ্দিন মেম্বার, আলী আমজাদ খান, কাজীমুদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন, সোহরাব উদ্দিন চেয়ারম্যান, ডাঃ ইউনুস, প্রফেসর বিল্লাল হোসেন, নাদের আলী চেয়ারম্যান, আলী আকবর, কফিল উদ্দিন, আব্দুর রউফ, আবু সাঈদ, জালাল উদ্দিন মাস্টার, রিয়াজ মাহমুদ আয়নাল ও কাজী সেলিম।

গাজীপুরে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা সারাদেশের ন্যায় গাজীপুরেও ১ নভেম্বর মঙ্গলবার শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে এ পরীক্ষা শুরু হয়ে দুপুর একটা পর্যন্ত চলে। প্রথম দিন জেএসসিতে বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আর জেডিসিতে কোরআন মাজিদ ও তাজবিদ বিষয়ের পরীক্ষায় অংশ নেবে মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীরা।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম মঙ্গলবার সকালে শহরের রাণী বিলাসমনি সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, জয়দেবপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, জয়দেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এসময় জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা জেলা প্রশাসকের সঙ্গে ছিলেন।

গাজীপুরের ৬২টি কেন্দ্রে একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এবার জেলায় জেএসসিতে ৪৮ হাজার ৬৮০ জন, মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে জেডিসিতে পরীক্ষার্থী ৫ হাজার ৯০৯ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ভোকেশনালে এক হাজার ৯৭২ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় দেয়।

গাজীপুরে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা

গাজীপুর শহরের জয়দেবপুর বাজারে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ১ নভেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ব্যস্ততম জয়দেবপুর বাজারের মাছ বাজার সংলগ্ন রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম টুটুল (৩৫)। তিনি জয়দেবপুর বাজারে ফুটপাতে স্টেশনারির ব্যবসা করতেন। তার বাড়ি জয়দেবপুর বাজার সংলগ্ন মুন্সিপাড়ায়। তিনি ওই এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সাত/আট জন দুর্বৃত্ত মাছ বাজার সংলগ্ন রাস্তায় টুটুলকে ঘেরাও করে কোপায়। টুটুল মাটিতে পড়ে গেলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে দ্রুত পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নিহতের স্ত্রী পারভীন আক্তার জানান, সন্ধ্যায় তাদের বাড়ি থেকে পার্শ্ববর্তী বিলাশপুর এলাকায় ভাড়া বাসায় তাকে নামিয়ে দিয়ে টুটুল জয়দেবপুর বাজারে ফিরছিল। পথে জয়দেবপুর বাজারের মাছ বাজার সংলগ্ন রাস্তায় তাকে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করা হয়।

তিনি জানান, গত তিন-চার দিন আগে টুটুল তাকে জানিয়েছেল, তার (টুটুলের) মামাত ভাই আকাশের সঙ্গে টাকা-পয়সা লেনদেন নিয়ে ঝগড়া হয়েছে। এর জেরে তাকে হত্যা করা হতে পারে।

নিহতের বাবা আব্দুল বাতেন জানান, টুটুল জয়দেবপুর বাজারের স্বর্ণপট্টি এলাকায় ফুটপাতে স্টেশনারি মালামালের ব্যবসা করত।

খবর পেয়ে রাত সোয়া ৭টার দিকে জয়দেবপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেল শেখ, জয়দেবপুর থানার ওসি খন্দকার রেজাউল হাসান রেজা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

জয়দেবপুর থানার ওসি খন্দকার রেজাউল হাসান রেজা সাংবাদিকদের জানান, কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, তার তথ্য পাওয়া গেছে। এগুলো যাচাইবাছাই করে দেখা হচ্ছে। হত্যাকারীদের ধরতে পুলিশের পাঁচটি দল অভিযান চালাচ্ছে।

 

গাজীপুরে মন্দির থেকে প্রতিমা চুরি

gazipur-kaliakoir-01-11-16গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় একটি মন্দির থেকে প্রতিমাসহ বিভিন্ন মালামাল চুরি হয়েছে।  ৩১ অক্টোবর সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

মন্দিরের সেবায়েত সুবল চন্দ্র চক্রবতী বলেন, সোমবার রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা আশ্রমের দরজার তিনটি তালা ভেঙে ভেতরে ঢোকে। পরে তারা সাড়ে পাঁচ কেজি ওজনের একটি পিতলের গোপাল মূর্তি ও নগদ চার হাজার টাকাসহ সাড়ে তিন লাখ টাকা মূল্যের বিভিন্ন মালামাল নিয়ে যায়।

কালিয়াকৈর থানার ওসি মোঃ আব্দুল মোতালেব মিয়া জানান, সোমবার রাতে উপজেলার শেওড়াতলী শ্রী শ্রী নিতাই গৌরাঙ্গ প্রভুর আশ্রমের মন্দিরে চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মন্দিরের সহ-সভাপতি স্বপন কুমার সাহা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন।

ওসি জানান, এ ঘটনায়র জড়িতদের গ্রেফতাার ও চুরি হওয়া মালামাল উদ্ধারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents