১:৫৬ পূর্বাহ্ণ - মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কান্না

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কান্না

fokrul     23.8.16ঢাকা, ২৩ আগষ্ট, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): অনলাইন নিউজপোর্টাল বন্ধের প্রতিবাদ এবং আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তির দাবিতে আলোচনা সভা। প্রধান অতিথি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। হঠাৎ তার চোখে পানি, এক পর্যায়ে ডুকরে কেঁদে উঠলেন এই বিএনপি নেতা।

কান্নার আগে বর্তমান সরকারের আমলে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ওপর নির্যাতন চলছে-এমন অভিযোগ করেন ফখরুল। এক পর্যায়ে নিজের আবেগ ধরে রাখতে পারেননি তিনি।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এই আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিল এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স (এ্যাব)।

অনুষ্ঠানের সব বক্তাই অভিযোগ করেন, বর্তমান সরকার গণমাধ্যমের ওপর সরকার দমন-পীড়ন চালাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ৩৬টি অনলাইন নিউজপোর্টাল বন্ধ করে দিয়েছে সরকার।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপির অনেক জেলার কার‌্যালয় তালাবদ্ধ। মাঝে মাঝে খুললেও সেখানে পুলিশ থাকে। কখনো ভেতরে বসে থাকে। কেন্দ্রীয় কার‌্যালয়ের সামনেও সব সময় পুলিশ বসে থাকে। আবার সাদা পোষাকে পুলিশের লোকজন সেখান থেকে ছোঁ মেরে নেতাকর্মীদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।’

সারাদেশে প্রতিনিয়ত বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে, গ্রেপ্তার করা হচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপি নেতা বলেন,‘চলাফেরার সময় যানজটে বসে থাকলে হকাররা এসে যখন চিনে ফেলে তখন বলে স্যার আমি লহ্মীপুরে বিএনপি করতাম। মামলার কারণে পালিয়ে ঢাকা এসে হকারি করছি। রিকশা চালাচ্ছে আমাদের ছেলেরা।’ একথা বলেই কেঁদে ফেলেন ফখরুল।

কিছুপর স্বাভাবিক হয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘কি ভয়াবহ অবস্থায় আমরা আছি। ধরে নিয়ে গুম করা হচ্ছে। কোনো খবর পাওয়া যায় না। এইজন্য কী আমরা যুদ্ধ করেছিলাম। নতুন নতুন আইন হচ্ছে। এই আইনে কথাও বলা যাবে না। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড,এক কোটি জরিমানা। আকার ইঙ্গিতে যে কোনোভাবে।’

উপস্থিত নেতাকর্মী ও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন,‘আপনি যদি একটি সত্যিকারের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় বাস করতে চান, স্বকীয়তাকে রক্ষা করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে।’

সরকারবিরোধী বৃহত্তর ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, ‘আমরা যখন বিভিন্ন দলের কাছে যাই তখন তারা নানা শর্তের কথা বলে। আমি বলি, যদি এই দমন পীড়নের খড়্গ আপনাদের ওপর পড়ে তখন কী করবেন।…

কোন দল কি করলো যেসব কথা বাদ দিয়ে আসুন আমরা অন্তত একটি বিষয়ে একমত হই। এক হয়ে আওয়াজ তুলি।’

মাহমুদুর রহমান, শফিক রেহমান, মাহমুদুর রহমান মান্নাসহ সকল রাজবন্দিদের মুক্তি দাবি করেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন দার্শনিক ফরহাদ মাজহার, সাংবাদিক রুহুল আমিন গাজী, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, শাকিল ওয়াহেদ প্রমুখ। সৌজন্যে ঢাকাটাইমস

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents