৩:০৪ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার, ২০ জুন , ২০১৯
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / আন্তর্জাতিক / কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলা : নিহত ৮০, আহত ২৩১

কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলা : নিহত ৮০, আহত ২৩১

kabul    24.7.16ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ২৪ জুলাই, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শনিবার সংখ্যালঘু শিয়া হাজার সম্প্রদায়ের একটি বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে ভয়াবহ আত্মঘাতী বোমা হামলায় কমপক্ষে ৮০ জন প্রাণ হারিয়েছে। এই হামলায় আহত হয়েছে ২শ ৩১ জন। জিহাদি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এই হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেছে।

এই ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ২০০১ সালের পর এটাই আফগান রাজধানীতে সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।

হাজারা গোষ্ঠীর লোকেরা একটি বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইনের দাবিতে বিক্ষোভ করছিল। তুর্কমেনিস্তান, উজবেকিস্তান, তাজিকিস্তান, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের মধ্য দিয়ে যাবে এমন একটি বিদ্যুৎ লাইন আফগানিস্তানের শিয়া হাজারা অধ্যুষিত বামিয়ান প্রদেশের ওপর দিয়ে নেওয়ার কথা ছিল।

২০১৩ সালে তৎকালীন আফগান সরকারের আমলে এই বিদ্যুৎ লাইনটি বামিয়ান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। বিদ্যুৎ লাইনটির নকশা আবার বামিয়ানে ফিরিয়ে নেয়ার দাবিতে বিক্ষোভটি হচ্ছিল। বিকেলে হঠাৎ করেই সেখানে একাধিক আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানো হয়।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য বিশ্ব দরবারে সুপরিচিত দেশটিতে শিয়া-সুন্নির মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির লক্ষ্যেই হামলাটি চালানো হয়েছে বলে বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিস্ফোরণের পর সেখানে বহু মানুষের ছিন্নভিন্ন দেহ পরে থাকতে দেখা যায়। আহত ব্যক্তিদের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

গতরাতে সরকারি বাহিনী বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণে প্রধান রাস্তাগুলো অবরোধ করে রাখায় অ্যাম্বুলেন্সগুলোকে ঘটনাস্থলে পৌঁছতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়। কাবুলে এখন পর্যন্ত এটাই আইএস এর সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।

স্বারাষ্ট্রমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ‘এই হামলায় ৮০ জন শহীদ ও আরো ২শ ৩১ জন আহত হয়েছে।’ মন্ত্রণালয় আরো জানায়, ‘তিনজন আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী এই হামলাটি চালিয়েছে। তৃতীয় হামলাকারীকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা গুলি করে হত্যা করেছে।’

হাসপাতালগুলোতে আহতদের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় রক্তের সংকট দেখা দিয়েছে। হাসপাতালগুলোর পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ডোনারদের কাছে জরুরি ভিত্তিতে রক্ত প্রদানের জন্য আবেদন জানানো হয়েছে।
তালেবান এই হামলায় তাদের কোন ধরনের সম্পৃক্ততা নেই বলে জানিয়েছে।

আফগানিস্তানে তালেবান আইএস এর চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। বার্তা সংস্থা আমাক পরিচালিত এক বিবৃতিতে আইএস জানিয়েছে, ‘কাবুলে শিয়াদের ওই সমাবেশে ইসলামিক স্টেটের দুজন যোদ্ধা শরীরে বেঁধে রাখা বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন।’

আফগানিস্তানের প্রধান গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল ডাইরেক্টোরেট অব সিকিউরিটি জানিয়েছে, নানগারহার প্রদেশের গোলযোগপূর্ণ অচিন এলাকার আইএস কমান্ডার আবু আলি এই হামলার মূল পরিকল্পনাকারী।

এদিকে ওয়াশিংটনের উড্রো উইলসন সেন্টারের বিশ্লেষক মিখায়েল কুগেলম্যান বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরেই এমনটা আশঙ্কা করা হচ্ছিল যে আইএস আফগানিস্তানে জাতিগত বিদ্বেষ ও সহিংসতা সৃষ্টি করার চেষ্টা চালাবে।’

জাতিসংঘ এই ঘটনাকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ হিসেবে অভিহিত করেছে।

আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি এই হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ‘চরম প্রতিশোধ’ নেয়ার শপথ নিয়েছেন। তিনি রোববার জাতীয় শোক ঘোষণা করেছেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

সকল ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে : রাষ্ট্রপতি

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ দেশের শান্তি ও অগ্রগতি …

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents