৭:১৫ পূর্বাহ্ণ - রবিবার, ১৮ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / আন্তর্জাতিক / তুরস্কে দমন-পীড়নের শিকার ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে

তুরস্কে দমন-পীড়নের শিকার ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ২১ জুলাই, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): তুরস্কে গত সপ্তাহের সেনা অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর সরকারের ব্যাপক দমনাভিযানে ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষ আটক, পদচ্যুত বা বরখাস্ত হয়েছে।

মঙ্গলবার থেকে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান বিরোধীদের ওপর দমনাভিযান আরও জোরদার করেছে। এর শিকার হয়েছে শিক্ষক, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন এবং গণমাধ্যমও। তুরস্কের গণমাধ্যম জানিয়েছে, ১৫ হাজার ২০০ শিক্ষক ও শিক্ষায় জড়িত অন্যান্য কর্মচারী বরখাস্ত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এক হাজার ৫৭৭ জন ডিনকে পদত্যাগ করতে বলা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের আট হাজার ৭৭৭ জন কর্মীকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রণালয়ের দেড় হাজার কর্মীকে বরখাস্ত করা হয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কর্মরত ২৭৫ জনকে বরখাস্ত হয়েছে।

তুরস্কের গণমাধ্যম পরিচালনা পরিষদ ২৪টি বেতার ও টিভি চ্যানেলের লাইসেন্স বাতিল করেছে। এ বেতার ও টিভি চ্যানেলগুলোর বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসিত ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনের সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে গুলেন ও তার অনুসারীদের নিঃশেষ করে দিতে শুরু করা ব্যাপক দমনাভিযানে দেশজুড়ে ছয় হাজারের বেশি জনকে আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে আছেন উচ্চপদস্থ সেনা সদস্যসহ প্রায় তিন হাজার বিচারক। আর প্রায় নয় হাজার পুলিশ কর্মকর্তা।

ব্যাপক-ধরপাকড়ে তুরস্কে আইনের শাসন এবং গণতান্ত্রিক শাসন ক্ষুণ্ন হওয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক মহল উদ্বেগ প্রকাশ করার পরও অভিযান থামেনি। তবে গুলেন বরাবরই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টায় জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে আসছেন।

তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম পার্লামেন্টে বলছেন, ‘গুলেন একটি সন্ত্রাসী সংগঠনের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। আমরা তাদের সমূলে উৎপাটন করব। তুরস্কে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সামরিক জান্তাদের জন্য সবসময়ই খুব গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। কিছু ব্যক্তির সঙ্গে সামরিক বাহিনীর সেলের সঙ্গে যোগযোগও আছে বলে মনে করা হয়।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িতদের বিদেশ ভ্রমণ বুধবার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিযুক্ত অভ্যুত্থান পরিকল্পনাকারীরা যাতে পালিয়ে যেতে না পারে সেজন্য সাময়িকভাবে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এক তুর্কি কর্মকর্তা।

হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, তুরস্ক গুলেনকে হস্তান্তরের জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে চাপ দিচ্ছে।

মুখপাত্র জোস আর্নেস্ট বলেন, গুলেনকে হস্তান্তর করা হবে কিনা সে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে দুই দেশের মধ্যে একটি চুক্তির আওতায় ।

তুরস্ক সরকারের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের উচিত গুলেনের বিরুদ্ধে অপকর্মের প্রমাণ না চেয়ে বরং তাকে সন্দেহের ভিত্তিতে তুরস্কের কাছে হস্তান্তর করা। গুলেনের অভ্যুত্থান চেষ্টায় জড়িত থাকার ঘোর সন্দেহ আছে। আর এটাই তাকে হস্তন্তর করার জন্য যথেষ্ট।

অন্যদিকে গুলেন বলেন, তার বিরুদ্ধে তুরস্ক সরকার যে অভিযোগ তুলেছে তা ‘উদ্ভট’। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার উদ্দেশে কোনোরকম হস্তান্তর প্রক্রিয়া প্রত্যাখ্যান করার জন্য আমি যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছি।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওমরাহ পালন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে এখানে পবিত্র …

জনগণ ছেড়ে বিদেশিদের কাছে কেন : ঐক্যফ্রন্টকে ওবায়দুল কাদের

গাজীপুর, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের চন্দ্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents