১১:২৯ পূর্বাহ্ণ - শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / জরুরী সংবাদ / পাবনার খবর

পাবনার খবর

এস, এম, আজিজুল হক, স্টাফ রিপোর্টার-পাবনা, ৩০ জুন ২০১৬ (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম) :  

বেড়া পৌরসভার মেয়র আবদুল বাতেনের
বরখাস্তের আদেশ স্থগিত করেছে হাইকোর্ট

pabna bara chirman baten    30.6.16পাবনার বেড়া পৌরসভার মেয়র আলহাজ আবদুল বাতেনের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ স্থগীত করেছে হাইকোর্ট। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ এবং বিচারপতি মো: ইকবাল কবীরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ মঙ্গলবার এই আদেশ দেন। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) এক মামলায় আদলতে দেয়া অভিযোগপত্রে নাম থাকায় গত ২৬ জুন পাবনা জেলার বেড়া পৌরসভার মেয়র আলহাজ মো. আবদুল বাতেনকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। হাইকোর্টের আদেশের অনুলিপি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব, উপ-সচিব স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের (পৌর শাখা), পাবনার জেলা প্রশাসক এবং পাবনার স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালকের কাছে পাঠানো হয়েছে। পাবনার স্থানীয় সরকার বিভাগ স্থগীতাদেশের কপি পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে বেড়া পৌরসভার মেয়র আলহাজ আব্দুল বাতেন বলেন, ‘আমি জনগনের প্রতিনিধি। দুদক আমার প্রতি অবিচার করেছে। মহামান্য হাইর্কোট আমার আরজি শুনে আমার সাময়িক বরখাস্তের আদেশ স্থগীত করেছেন’। তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনাকে যারা চিরদিনের জন্য ধংস করতে চেয়েছিল সেই আওয়ামীলীগের সংস্কারবাদী নেতা ও সাবেক তথ্যপ্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আবু সাইয়িদ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে দেন-দরবার করে এই সাময়িক বরখাস্তের আদেশ করিয়েছিলেন। আমি জনগণের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, হাইকোর্টের আদেশে আমি ন্যয় বিচার পেয়েছে’।

ক্ষমতার অপব্যবহার মাধ্যমে প্রায় তিন কোটি সরকারি অর্থ আত্মসাত ও দুর্নীতির অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় পাবনার বেড়া পৌরসভার মেয়র ও বেড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ আব্দুল বাতেনসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে গত ২৩ মার্চ পৃথক চারটি মামলায় চার্জশীট দেয় দুদক। পাবনার অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মো: রেজাউল করিম চার্জশীট গ্রহণ করে পরবর্তি কার্যক্রম গ্রহণের নির্দেশ দেন। গত বছরের ২৭ আগষ্ট এবং ৩১ আগষ্ট দুদক, পাবনা অফিসের উপ সহকারী পরিচালক জালাল উদ্দিন বাদী হয়ে এই মামলা গুলো করেন।

পাবনায় পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ৩৭ হাজার ২৪২ হেক্টর

pabna jute cut    30.6.16পাবনার ৯টি উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৩৭ হাজার ২৪২ হেক্টর জমিতে পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। উৎপাদন নির্ধারন করা হয়েছে, ৪ লাখ ১০ হাজার ৯৫৯ বেল পাট। ইতোমধ্যে দেশী জাতের পাট  বেশ বড় হয়ে গেছে। সাম্প্রতিককালে বৃষ্টির কারনে এবার পাবনায় পাটের আশাতীত ফলন হবে বলে আশা করছে কৃষি অধিদফতর। পাবনা জেলায় দেশী পাট আবাদ হচ্ছে ১৫৩ হেক্টর। তোষা পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে, ৩৬ হাজার ৯৭৯ হেক্টর জমি। মেস্তা পাট আবাদ ধরা হয়েছে ১১০ হেক্টর জমিতে। নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা পূরনের লক্ষ্যে কৃষি সম্প্রসারন অধিদফতর মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা ও পরামর্শ অব্যাহত রেখেছে বলে জানা গেছে।

পাবনা কৃষি সম্প্রসারন অধিদফতরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক খুরশিদ আলম জানান, পাবনা সদর উপজেলায় চলতি খরিপ-১ মৌসুমে মোট পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নেয়া হয়েছে, ৮ হাজার ১৯৫ হেক্টর জমি। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৯০ হাজার ৫০১ বেল পাট। এর মধ্যে দেশী পাট আবাদের লক্ষ্য মাত্রা ধার্য করা হয়েছে ১৫ হেক্টর , উৎপাদন র লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়েছে ১৩৯ বেল,  তোষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮ হাজার ১৯৫ হেক্টর, উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৯০ হাজার ২৭৮ বেল। মেস্তা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১০ হেক্টর ,উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮৪ বেল পাট।
আটঘড়িয়া উপজেলায় মোট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৩ হাজার ৮৮৬ হেক্টর। এ উপজেলায় মোট উৎপাদন আশা করা হয়েছে ৪২ হাজার ৯২৮ দশমিক ৪ বেল পাট। এর মধ্যে দেশী পাট রয়েছে ০৫ হেক্টর, উৎপাদন ধরা আছে ৪৬ বেল। তোষা জাতের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে ৩ হাজার ৮৮০ হেক্টর, উৎপাদন আশা করা হয়েছে ৪২ হাজার ৮৭৪ বেল। মেস্তা জাতের পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ০১ হেক্টর, উৎপাদন ধরা হয়েছে ৮ দশমিক ৪০ বেল পাট।
ঈশ্বরদী উপজেলায় পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধাবন করা হয়েছে ৫১০ হেক্টর জমি। উৎপাদন নির্ধারন করা হয়েছে ৫ হাজার ৬১৩ বেল পাট। এর মধ্যে দেশী পাটের আবাদ হবে ০৫ হেক্টর, উৎপাদন হবে ৪৬ বেল, তোষা জাতের আবাদ হবে ৫০০ হেক্টর, উৎপাদন হবে ৫ হাজার ৫২৫ বেল পাট। মেস্তা জাতের পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ০৫ হেক্টর উৎপাদন ধরা হয়েছে ৪২ বেলপাট।
চাটমোহর উপজেলায় পাট আবাদের মোট  লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৫ হাজার ৩৯৫ হেক্টর জমি। উৎপাদন আশা করা হয়েছে, ৫৯ হাজার ৩৭৫ বেল পাট। এর মধ্যে দেশী জাতের পাটের আবাদ হবে ৬০ হেক্টর, উৎপাদন আশা আছে, ৫৫৬ বেল, তোষা জাতের পাটের আবাদ নির্ধারন করা হয়েছে ৫ হজার ২৮৫ হেক্টর জমি, উৎপাদন আশা আছে ৫৮ হাজার ৩৯৯ বেল, মেস্তা আবাদ হবে ৫০ হেক্টর, উৎপাদন আশা করা আছে ৪২০  বেলপাট।
ভাঙ্গুড়া উপজেলায় মোট পাটের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে, ৫২৫ হেক্টর জমি। উৎপাদন আশা করা হয়েছে, ৫ হাজার ৬৮৫ বেল পাট। এ উপজেলায় দেশী জাতের পাট আবাদ হবে ৪৫ হেক্টর, উৎপাদন নির্ধারিত আছে ৪১৭ বেল, তোষা জাতের পাটের আবাদ হবে ৪৬৫ হেক্টর, উৎপাদন হবে ৫ হাজার ১৩৮ বেল। মেস্তা পাটের আবাদ হবে ১৫ হেক্টর, উৎপাদন ধরা আছে ১২৬ বেল পাট।
ফরিদপুর উপজেলায় মোট পাটের আবাদ হবে ৬৩১ হেক্টর জমি। উৎপাদন হবে ৯ হাজার ৯২৯ দশমিক ৫ বেল পাট। এর মধ্যে দেশী জাতের আবাদ হবে ০২ হেক্টর, উৎপাদন ধরা হয়েছে, ১৮ দশমিক ৫ বেল। তোষা জাতের পাটের আবাদ হবে ৬১৪ হেক্টর, উৎপাদন আশা আছে ৬ হাজার ৭৮৫ বেল। মেস্তা পাটের আবাদ হবে ১৫ হেক্টর, উৎপাদন হবে ১২৬ বেলপাট।
বেড়া উপজেলায় পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে ১ হাজার ৬৮৩ হেক্টর জমি। উৎপাদন নির্ধারিত আছে ১৮ হাজার ৫৯০দশমিক ৩ বেল পাট। এ উপজেলায় দেশী জাতের পাট আবাদ করা হবে ০১ হেক্টর জমি, উৎপাদন আশাকরা হচ্ছে ১০ বেল, তোষা জাতের আবাদ হবে ১ হাজার ৬৮০ হেক্টর, উৎপাদন হবে ১৮ হাজার ৫৬৪ বেল পাট। মেস্তা পাটের চাষ হবে ০২ হেক্টর, উৎপাদন ধরা আছে ১৭ বেলপাট।
সাঁথিয়া উপজেলায় মোট পাটের আবাদ আশা করা হয়েছে ৫ হাজার ৮৮২ হেক্টর, উৎপাদন আশা করা হয়েছে ৬৪ হাজার ৯৮২ বেল পাট। এখানে দেশী জাতের পাট আবাদ হবে ০৫ হেক্টর জমি, এ জমি  থেকে উৎপাদন হবে ৪৬ বেলপাট। তোষা জাত পাটের আবাদ হবে ৫ হাজার ৮৭৫ হেক্টর, উৎপাদন ধরা হয়েছে ৬৪ হাজার ৯১৯ বেল, মেস্তা পাটের আবাদ ধরা হয়েছে ০২ হেক্টর , উৎপাদন নির্ধারিত আছে ১৭ বেলপাট।
সুজানগর উপজেলায় মোট পাটের আবাদ হবে ১০ হাজার ৫৩৫ হেক্টর। উৎপাদন হবে ১ লাখ ১৬ হাজার ৩৫৯ বেল। দফা ওয়ারি দেখা যায়, সুজানগরে দেশী জাতের পাট আবাদ হবে ১৫ হেক্টর, উৎপাদন আশা করা হয়েছে ১৩৯ বেল, তোষা জাতের পাটের আবাদ হবে ১০ হাজার ৫১০ হেক্টর উৎপাদন আশা করা হয়েছে ১ লাখ ১৬ হাজার ১৩৬ বেল এবং মেস্তা জাতের পাট আবাদ হবে ১০ হেক্টর, উৎপাদন নির্ধারন করা হয়েছে ৮৪ বেল পাট। পাবনা জেলায় এ বছর সুজানগর উপজেলাতে পাটের আবাদ ও উৎপাদন বেশী আশা করা হচ্ছে।
পাবনা কৃষি সম্প্রসারন অধিদফতরের উপ-পরিচালক বিভুতি ভুষণ সরকার জানান, গত মৌসুমের চেয়ে চলতি মৌসুমে ১ হাজার ২৪৯ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ বেশী করা হচ্ছে। উৎপাদনও বাড়বে ২১ হাজার ৬১১ বেল পাট। গত মৌসুমে জেলার নয়টি উপজেলাতে ৩৫ হাজার ৯৯৩ হেক্টর জমিতে পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩ লাখ ৮৯ হাজার ৩৪৮ বেল পাট। সরকার পাটের বস্তা ব্যবহারের উপর জোড় দেবার কারনে পাটের দাম বেড়েছে। ফলে পাট চাষীরা ভাল লাভবান হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

বাংলাদেশের উন্নয়নে আমিও অংশীদার হতে চাই : সৌদি যুবরাজ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): সৌদি যুবরাজ, উপ-প্রধানমন্ত্রী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান …

জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেট ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহানবী হযরত মুহম্মদ (স.) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents