২:০৫ পূর্বাহ্ণ - বুধবার, ১৪ নভেম্বর , ২০১৮
Breaking News
Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / Uncategorized / বেসিস থেকে নিতে নয়, দিতে চাই

বেসিস থেকে নিতে নয়, দিতে চাই

ঢাকা, ২৫ জুন, ২০১৬ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): রাত ফুরোলেই শুরু হবে বাংলাদেশের সফটওয়্যার খাতের সবচেয়ে বড় সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)-এর নির্বাচন। অন্যান্য বছরের নির্বাচন অতটা জনপ্রিয় না হলেও এবারের নির্বাচন তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে বেশ গুরুত্বপূর্ণ। সরকারের ‘ভীষণ২০২১’ বাস্তবায়ন করার জন্য বেসিসের সঠিক নেতৃত্ব ভোটারদের কাছেও বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে।

দ্য চেঞ্জ মেকার্স এবং ডিজিটাল ব্রিগেড নামে দুটি প্যানেল নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। দ্য চেঞ্জ মেকার্সের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মাইক্রোসফট বাংলাদেশের পরিচালক সোনিয়া বশির কবির। নির্বাচনকে সামনে রেখে ভবিষ্যত পরিকল্পনা এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বেসিস কতটা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে এ ব্যাপারে বাংলামেইলকে একান্ত সাক্ষাতকার দেন দ্য চেঞ্জ মেকার্সের দলনেতা।

বেসিসে প্রথম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, প্রথম নারী দলনেতা হিসেবে কতটা সাড়া পাচ্ছেন?- এ প্রশ্নের জবাবে সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘আমি ছোটকাল থেকে খেলাধুলার সাথে বড় হয়েছি। হারতেও ভয় পাই না আবার জীতে গেলেও উচ্ছ্বসিত হই না। জীবনকে স্বাভাবিকভাবে উপভোগ করতেই পছন্দ করি। আর হার জিত এগুলো জীবনের অংশ। নারী হিসেবে আমার মাতৃত্বের যেমন দায়িত্ব রয়েছে তেমনি সামাজিক দায়িত্ববোধটাও আমার কম নয়। ভোটারদের সঙ্গে কথা বলছি। যারা আমার সম্পর্কে জানতেন না তাদের জানিয়েছি। এই সংগঠনে সবাই শিক্ষিত। তাই মূল্যায়নটা সঠিকভাবেই ভোটাররা করবেন বলে আমার বিশ্বাস।’

বেসিসকে আজকের অবস্থানে নিয়ে আসতে আগের প্যানেলগুলোর সর্বোচ্চ চেষ্টা অনস্বীকার্য। আপনার প্যানেল বিজয়ী হলে বেসিসের অবস্থান কিভাবে পরিবর্তন করবেন বলে আপনি মনে করেন? – মাইক্রোসফট বাংলাদেশের পরিচালক সোনিয়া বলেন, ‘নিঃসন্দেহে বেসিস প্রতিদিন উন্নতির পথে অগ্রসর হচ্ছে। আমাদের নির্বাচনী ইশতেহারে আমরা প্রথম যে কথাটি দিয়ে শুরু করেছি তা হলো ‘মেম্বারস ফার্স্ট।’ সদস্যদের উন্নয়নে সংগঠনের উন্নয়ন। আর প্রতিটি সদস্য নিজের উন্নতি করতে পারলে দেশের মানুষ এ সংগঠন থেকে লাভবান হবে এতে কোন সন্দেহ নেই। আমি নিজে কোডিংয়ের ওপর পড়াশোনা করেছি। আমি জানি, কিভাবে সফটওয়্যার খাতকে লাভবান খাতে পরিণত করতে হয়। আমার পরামর্শগুলো সফটওয়্যার সম্পর্কিত হবে। এভাবে সদস্য থেকে সংগঠন এবং সংগঠন থেকে দেশের উন্নতি হবে।’

আপনি নিজের ক্যারিয়ারে প্রতিষ্ঠিত। বেসিসের সঙ্গে সম্পৃক্ততা আপনার ক্যারিয়ারকে কতটুকু প্রভাবিত করতে পারে? – দ্য চেঞ্জ মেকার্সের দলনেতা বলেন, ‘দেখেন, আমার বেসিস থেকে নেয়ার কিছু নেই। মাইক্রোসফট বাংলাদেশ ছাড়াও আমি ডি.মানির নেতৃত্ব দিচ্ছি। আমার ক্যারিয়ারে বেসিসের ভূমিকা আসার প্রশ্ন আসে না। তবে আমি বেসিসকে দিতে চাই। কারণ, আমি মনে করি, সঠিক নেতৃত্ব বেসিসের উন্নয়নের পাশাপাশি দেশের উন্নয়নেও ভূমিকা রাখবে। বর্তমানে টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী এবং তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রীসহ আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সঠিক নেতৃত্বে বাংলাদেশের আইসিটি খাত সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছে। সঠিক নির্দেশনাগুলোকে উপযুক্ত সময়ে কাজে লাগিয়ে বাস্তবায়ন করতে বেসিসেও যোগ্য নেতৃত্ব প্রয়োজন। তাই আমি চাই বেসিস সঠিক পথে এগিয়ে যাক উপযুক্ত নেতৃত্বের সঙ্গে।’

 

এবারের নির্বাচনে অর্ধেকের বেশি সদস্য ভোটার হতে পারেন নি। দেশের সর্ব বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান বেসিসের সদস্যদের এই সমস্যা সমাধানে আপনার পরিকল্পনা কি? – সোনিয়া বশির বাংলামেইলকে বলেন, ‘ব্যাপারটা অবশ্যই দুঃখজনক। তবে বেসিস নয় দেশের অনেক বড় বড় সংগঠনের ক্ষেত্রেও সদস্যদের তুলনায় ভোটার সংখ্যা কম হতে দেখা যায়। আমি নির্বাচিত হলে ভোটারদের ভোট দিতে যেসব দলিলাদি এবং পদক্ষেপ নিতে হয় সে ব্যাপারে তাদের সচেতন করবো। কারো ব্যক্তিগত সমস্যা থাকলে তা সমাধানে পরামর্শ দেবো। সর্বোপরি সংগঠনের নিয়ম নীতিগুলো অনেকের জানা থাকে না বা সদস্যরা এই নিয়ম কানুনগুলোর ব্যাপারে শেষ দিকে এসে সতর্ক হয়। আমি প্রথম থেকেই সদস্যদের সব ধরণের দলিলাদি আপ টু ডেট রাখার পরামর্শ দেবো।’

মাইক্রোসফটকে বিদেশি প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত করে আপনার নেতৃত্বকে অনেকে বিদেশি নেতৃত্ব হিসেবে ঘোষণা দিচ্ছেন। এ ব্যাপারে আপনার অভিমত কি? – মাইক্রোসফট বাংলাদেশের পরিচালক বলেন, ‘আমি শুধু মাইক্রোসফট বাংলাদেশ নই, আমার প্রতিনিধিত্ব রয়েছে জাতিসংঘে। ডি.মানি প্রতিষ্ঠানের পরিচালনায় আমার অংশীদারিত্ব রয়েছে।বাংলাদেশ উইমেন অ্যান্ড টেকনোলজি এবং টাই ঢাকা বাংলাদেশের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আমি। এভাবে অনেক প্রতিষ্ঠানের কথাই আমি বলতে পারবো। যদি বিদেশি প্রতিষ্ঠান বলে সমস্যা হতো তাহলে তো আমার সদস্য হওয়ার কথাও ছিলো না। সুতরাং এই ধরণের মন্তব্যকে আমি আমলে নিতে চাই না।’

প্রযুক্তিখাতে বেসিসের মাধ্যমে কিভাবে পরিবর্তন করতে চান? – সোনিয়া কবির বশির বলেন, ‘ বিনিয়োগের কোন বিকল্প নেই। বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলো বিনিয়োগ করার জন্য উপযুক্ত লোক খুঁজছে। আমি বিশ্বাস করি, আমাদের প্যানেল নেতৃত্বে এলে আমরা ভালো ইনভেস্টর পাবো। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থনীতিতে প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে সফটওয়্যার খাতকে আমরা বিকশিত করবো। দেশের প্রযুক্তিকে প্রমোট করতে আমাদের পরিকল্পনা হবে যুগোপযোগী। সারা পৃথিবীতে গার্মেন্টস শিল্পে যেমন ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ কাপড়ের দেখা উন্নত বিশ্বে দেখা যায় তেমনিভাবে প্রযুক্তিতেও আমাদের এমন কিছু থাক যেখানে বাংলাদেশের তৈরি এই বার্তাটি সারা পৃথিবীর মানুষ জানবে।’

 

নির্বাচনে যদি পরাজিত হন, বেসিসের পাশে কতটুকু পাওয়া যাবে আপনাকে? – ‘দেখুন, হার জিত দিয়েই বেসিসের সঙ্গে সম্পর্ক নয় আমার। আমি চাই বেসিসের সঙ্গে থাকতে। আর সদস্য হিসেবে সে থাকার সুযোগ আমার সবসময় রয়েছে। তাই বেসিসের সাথে আছি সবসময়।’ – বলেন দ্য চেঞ্জ মেকার্সের দলনেতা।

বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের প্রযুক্তি বিষয়ে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আপনার পরিকল্পনা কী? – সোনিয়া বশির কবির বাংলামেইলকে বলেন, ‘ ধরুন, এই পিজা হাটে প্রবেশের জন্য পথ রয়েছে দুটি। আপনি চাইলে সামনের দরজা দিয়েও প্রবেশ করতে পারেন অথবা পেছনের দরজা দিয়েও ঘুরে প্রবেশ করতে পারেন। কম্পিউটারের কোডিং ব্যাপারটাও এমন। ৫ লাইনেও লেখা যায় আবার ২৫ লাইনেও লেখা যায়। আমি নিজে কোর্ডিংয়ের শিক্ষার্থী। তাই এই ব্যাপারটা আমি অনুধাবন করতে পারি। ২৫ লাইনের পুরাতন পদ্ধতি ছেড়ে আমরা নতুন এবং কার্যকর পদ্ধতির দিকে এগিয়ে যাবো এটি আমাদের লক্ষ্য। প্রয়োজনে স্ট্যানফোর্ড, এমআইটি, ক্যালটেক এর মতো নামকরা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রশিক্ষক এনে দেশের শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেয়ার ইচ্ছেও আমাদের রয়েছে।’

সোনিয়া বশির কবির যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালিতে ২০ বছরের বেশি কাজ করেছেন। মাইক্রোসফটে যোগ দেয়ার আগে ডেল বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার ছিলেন। মাইক্রোসফটের দক্ষিণ এশিয়া বিজনেস ডেভেলপমেন্ট পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছেন। শুধু আইটি খাতেই নয় খেলাধুলাতেও রয়েছে তার সমান দক্ষতা। বাংলাদেশ জাতীয় ভলিবল দল ও জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় হিসেবেও তার পরিচিতি রয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) উইমেন উইং এবং আবাহনী উইমেন গেইম ডেভেলপমেন্টে কাজ করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে প্রযুক্তি খাতের এই ব্যক্তিত্বের।

অন্যরা য়া পড়ছে...

Loading...



চেক

মাইন বিস্ফোরণে মালিতে জাতিসংঘের ৮ শান্তিরক্ষী সদস্য হতাহত

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, ০১ মার্চ ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): মালির মধ্যাঞ্চলে বুধবার মাইন বিস্ফোরণে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী …

দক্ষিণ আফ্রিকান তারকা হাশিম আমলা হ্যাম্পশায়ারের সাথে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য চুক্তি করলেন

স্পোর্টস ডেস্ক, ০১ মার্চ ২০১৮ইং (বাংলা-নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম): আসন্ন ইংলিশ মৌসুমে প্রথম তিন মাসের জন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

My title page contents